The Secrets Of Happiness – 1

People aim for a goal.

When someone achieves it, he feels blissful – but only for a short period of time. The feeling of bliss fades with time. The achievement becomes normal. He forgets to feel happy for his current position. This makes people who are successful, and even a person of envy in the minds of a lot of people, actually be unhappy themselves.

But this is not ought to be the case. 


We can always go back in our minds to where we were. We can imagine life without some of the blessings, possessions, positions (even our spouse) we have and express gratitude and feel happy.



The secrets of happiness lay hidden in our minds! 

স্বপ্নের বাংলাদেশ অভিমুখে অগ্রযাত্রা (৩০.০৪.২০১৪)

আমাদের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সীমান্ত রক্ষাকারী বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থাগুলো এবং সর্বোপরি সাধারণ জনগণ অন্যায় – অপরাধ – দুর্নীতি দূর করতে তাদের কার্যকারিতা দেখাচ্ছেন।  


এবার ব্যবসায়ী সমাজের পালা। 

ব্যবসায়ীরা আরও বেশি বেশি পণ্য ও সেবা উৎপাদন করবেন। নতুন নতুন পণ্য রপ্তানি করবেন। রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি আসবে। 

আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা চাঁদাবাজদের আইনের আওতায় এনে ব্যবসায়ীদের কাজ সহজ করে দেবেন। 

চলমান অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ৭%+ দেখতে চাই। 

নাগরিক শক্তি ক্ষমতায় গিয়ে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হারকে ১০%+ এ উন্নীত করবে।

"মাদকমুক্ত বাংলাদেশ" গড়ার পথে অগ্রযাত্রা – ২

“মাদকমুক্ত বাংলাদেশ” গড়ার পথে এই কয়েকদিনে আমরা আরও অনেকটা এগিয়েছি।


“টেকনাফ সীমান্তে ইয়াবা সিন্ডিকেটে অভিযানের পর গোটা এলাকার দৃশ্যপট পাল্টে গেছে। এর ধাক্কা এসে লেগেছে স্থানীয় বাজারেও। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দরপতন শুরু হয়েছে। ইয়াবার ‘তরতাজা টাকায়’ সীমান্ত শহরটির হাটবাজার, দোকানপাটে প্রধান ক্রেতা ছিল তারাই। বাজারের মাছ-মাংস থেকে শুরু করে সব কিছুর দাম ছিল আকাশছোঁয়া। এই আকাশছোঁয়া দামের পণ্যের ক্রেতারা অভিযানের ভয়ে লাপাত্তা। মাত্র তিন দিনের ব্যবধানে কেজিপ্রতি ৩০০ টাকার দেশি মুরগি গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে নেমে এসেছে ২০০ টাকায়। হাজার টাকার ইলিশ মাছের দামও নেমে এসেছে অর্ধেকে। এতে সীমান্তের সাধারণ মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।
সূত্র – ইয়াবা সাম্রাজ্যে পণ্যমূল্যে ধস নিখোঁজ দুজনের হদিস নেই

রাতারাতি পাল্টে গেছে টেকনাফ সীমান্তের দৃশ্যপট। বৈধ-অবৈধ জমজমাট ব্যবসার চেনা দৃশ্যে আকস্মিক যেন ধস নেমেছে। রাতভর নাফ নদীর তীরের চোরাই নৌঘাটগুলোতে বিজিবি সদস্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে ইয়াবা লেনদেনের নিত্যদিনের সেই দৃশ্যপট চোখে পড়েনি। দামি মোটরসাইকেল নিয়ে ‘ইয়াবা তরুণ’দের ভোর থেকে রাত পর্যন্ত সীমান্ত জনপদজুড়ে ছোটাছুটির দেখাও মিলছে না। যেসব চিহ্নিত ব্যক্তি দিন-রাত ব্যস্ত সময় কাটাতেন মাদক পাচারে সেই ব্যক্তিদেরও দেখা যাচ্ছে না। গত দুদিন ধরে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার চালান পাচারও বন্ধ রয়েছে বলে বিজিবি-১৭ ও বিজিবি-৪২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়কদ্বয় নিশ্চিত করেছেন।”
সূত্র – কারবারিরা হাওয়া, টেকনাফ থমথমে

মাদক মুক্তির আরও খবর



“মাদকমুক্ত বাংলাদেশ”


“মাদকমুক্ত বাংলাদেশ” গড়ার পথে আমরা অগ্রযাত্রা শুরু করেছি। এখন সমান্তরালভাবে আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব হবে – মাদকসেবীদের পুনর্বাসন – যারা ভুল পথে গিয়েছিলেন, তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনা।

বাংলাদেশের রাজনীতিতে গুনগত পরিবর্তনের গল্প – ৩

এপ্রিল-মে ২০১৩ তে প্রথম যখন আমরা নতুন একটা রাজনৈতিক দল নিয়ে কথা বলছিলাম তখন যারা শুনেছিল তাদের মাঝে কত আগ্রহ! 

  • নাগরিক সমাজের পাশাপাশি ব্যবসায়ী সমাজও দেশে অর্থনীতি ফোকাসড রাজনীতি সূচনার সম্ভাবনা দেখছিল।    
  • ১৬ কোটি মানুষকে এক করার ধারণাটা তখনকার! 
  • “হেফাজতে বাংলাদেশ চাই” [1] তখন লেখা হয়েছিল – এমন একটা রাজনৈতিক দল যে দলটি বাংলাদেশের সব মানুষের হেফাজত করবে।
  • যেসব রাজনীতিবিদ বাংলাদেশের রাজনীতি নিয়ে হতাশায় ছিলেন – তারাও আশাবাদী হয়ে উঠেছিলেন। “এককেন্দ্রিক শাসনব্যস্থা আর নয়” [2] তখন লেখা হয়েছিল। 



অক্টোবর ২০১৩ থেকে ধীরে ধীরে আমরা আজকের পর্যায়ে আসি! আমার লেখাগুলোর মাধ্যমে আমাদের ভিশনটা ফুটে ওঠে।  

  • ডিসেম্বর ২০১৩ তে তরুণদের তুমুল আগ্রহ! ছোট বড় সবাই বাংলাদেশের আম আদমি চাইছে!
  • ২০১৪ তে আমরা আস্থা অর্জনের মত অনেক কিছু করেছি।  
    • মাদকমুক্ত বাংলাদেশ অভিমুখে অগ্রযাত্রা 
    • সন্ত্রাসীদের গডফাদারদের নির্যাতন কেন্দ্র বন্ধ করা  
    • সনাতনী সম্প্রদায়ের উপর হামলার প্রতিবাদ 
    • দুর্নীতিবিরোধী দৃঢ় অবস্থান। দুর্নীতিবাজদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে ভূমিকা।
    • সবরকম অন্যায় অপরাধ অবিচার দুর্নীতির বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান।    


কিন্তু সত্যি বলতে – আমাদের পুরো সম্ভাবনার কিছুই এখনও হয়নি! কিছুদিন পর নাগরিক শক্তি আত্মপ্রকাশ করবে আর তারপর পুরোপুরি শুরু হবে! 


সামনের দিনগুলোর কথা কল্পনা করি! 

যতই দিন যাবে – বাংলাদেশ পুরোটা ধীরে ধীরে নাগরিক শক্তি হয়ে উঠবে!


রেফরেন্স

  1. হেফাজতে বাংলাদেশ চাই
  2. এককেন্দ্রিক শাসনব্যস্থা আর নয়

দেশের সন্ত্রাসীদের গডফাদার দুর্নীতিবাজদের ভয়াবহতার চিত্র – ১৩ [লক্ষ্মীপুরের গডফাদার আবু তাহের]

লক্ষ্মীপুরের তাহের বাহিনীর প্রধান গডফাদার আবু তাহের   #SayNoToCorruption

লক্ষ্মীপুর পৌরসভার মেয়র আবু তাহেরের তিন ছেলেই একাধিক খুনের মামলার আসামি তাহেরও খুনের মামলার আসামি ছিলেন।

বিগত আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে (১৯৯৬-২০০০) তাহের-পরিবারের সদস্যদের নানা অপরাধের কারণে লক্ষ্মীপুর সন্ত্রাসের জনপদে পরিণত হয়। ওই সময় বিএনপির নেতা আইনজীবী নুরুল ইসলামকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে হত্যা করা হয়।

নুরুল ইসলাম হত্যা মামলায় তাহেরের ছেলে এ এইচ এম বিপ্লবের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন আদালত। কিন্তু তাহেরের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতি তাঁর মৃত্যুদণ্ডাদেশ মওকুফ করেন। নুরুল ইসলাম হত্যা মামলা ছাড়াও বিপ্লব আরও চারটি হত্যা মামলার আসামি। এর মধ্যে দুটিতে তাঁর যাবজ্জীবন সাজা হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর থানা সূত্রে জানা গেছে, নুরুল ইসলাম হত্যা ছাড়াও বিপ্লবের বিরুদ্ধে চারটি হত্যা মামলা হলো: বিএনপির কর্মী কামাল হোসেন, পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক ফিরোজ আলম। পাঁচটি হত্যা মামলায় তাহেরের পালিত ছেলে আবদুল জব্বার লাভলু ওরফে লাবুও আসামি।

তাহেরের আরেক ছেলে এ কে এম সালাউদ্দিন ওরফে টিপু নুরুল ইসলাম, ফিরোজ আলম ও কামাল হোসেন হত্যা মামলার আসামি ছিলেন। আর তাঁদের বাবা আবু তাহের নুরুল ইসলাম ও কামাল হোসেন হত্যা মামলার এবং মা নাজমা নুরুল ইসলাম হত্যা মামলার আসামি ছিলেন।

ফিরোজ আলম হত্যা: দক্ষিণ মজুপুর গ্রামের আবুল কাশেম জানান, ১৯৯৮ সালের ২ অক্টোবর বিপ্লবের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা তাঁর ছেলে পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক ফিরোজ আলমকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। সেদিন রাতেই ফিরোজকে শহরের শহীদ স্মৃতি বিদ্যালয়ের পেছনে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে বিপ্লব, টিপু, পালিত ছেলে লাবুসহ ২৪ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন।

বিপ্লবের মৃত্যুদণ্ডাদেশ মওকুফের কথা শুনে হতভম্ব হয়ে পড়েন আবুল কাশেম। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘সন্ত্রাসীদের কাছে আমরা বারবার পরাজিত।’

নুরুল ইসলাম হত্যা মামলার প্রথম বাদী লক্ষ্মীপুর আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি তারেক উদ্দিন মাহমুদ চৌধুরীর কাছে বিপ্লবের মৃত্যুদণ্ডাদেশ মওকুফের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি রাগে-ক্ষোভে কোনো কথা বলেননি। সমিতির বর্তমান সভাপতি সৈয়দ মো. শামছুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, ‘সন্ত্রাসীরা হত্যা করবে, আর রাষ্ট্রপতি তাদের মৃত্যুদণ্ডাদেশ মওকুফ করে দেবেন, এটা ন্যায়বিচার হতে পারে না।’

শহরের ওষুধ ব্যবসায়ী বিজয় দেবনাথ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘পাঁচটি হত্যা মামলার আসামি বিপ্লবকে মুক্ত করে দিলেন। বিপ্লবের কথা মনে পড়লেই গা শিউরে ওঠে।’

কামাল হত্যা: বিএনপির কর্মী কামাল হোসেন হত্যা মামলার বাদী তাঁর ভাই আবদুর রহিম মুঠোফোনে বলেন, কামালকে ১৯৯৯ সালের আগস্টে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় তিনি আবু তাহের, তাঁর ছেলে বিপ্লব, টিপু ও লাবুসহ ছয়জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। চট্টগ্রাম বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল বিপ্লবের দুই ভাই টিপু ও লাবুকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন। এই মামলায় আবু তাহের ও তাঁর ছেলে বিপ্লবের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়। 

সূত্র – তাহেরের তিন ছেলেই খুনের মামলার আসামি

গডফাদার আবু তাহেরের আরও কুকীর্তি

এসব খুনি সন্ত্রাসীদের গডফাদারদের সমস্ত ঘৃণ্য কার্যকলাপ পত্রপত্রিকার রিপোর্ট এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে সারা পৃথিবীর সামনে উন্মোচিত হবে, মানুষ তাদের ঘৃণা করবে এবং তাদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দেওয়া হবে।

Programming Languages I Am Learning – Focusing On

Programming Languages I Am Learning – Focusing On And The Reasons Behind Choice

  1. C/C++
    • Systems (Linux, Android, Chrome) Programming 
    • Efficiency. Memory manipulation. Complete control over the environment. 
  2. Go 
    • Systems, Concurrent and Networked Programming 
    • Static Typing
    • Faster compilation 
  3. Java 
    • Managed Code
    • Android Application Development
    • Open Source Libraries and Frameworks
  4. Scala 
    • A blend of all the features you ever saw in different languages! 
    • Tries to answer “So, if we want to let programmers implement this feature as language library rather than language syntax, what features do we need to introduce in the language?” 
      • Features: 
        • Actors Library 
        • Operators as Functions 
        • Flexible syntax (Prefix, Infix, Postfix mixing) 
      • Makes Scala DSL friendly and “scalable”.
      • Makes the core language small (rest of the features are implemented in the library). Lisp Philosophy. 
    • What happens when you try to fuse OOP and Functional Programming on JVM? 
    • Static Typing and Terse syntax
    • Concurrent and Distributed Programming
  5. Clojure 
    • Lisp on JVM
    • Metaprogramming (Programmable Language) 
    • Functional Programming
    • Concurrent Programming
  6. Python 
    • Rapid Development
    • Open Source Libraries and Frameworks
  7. Ruby
    • Object Oriented, Dynamic, Scripting Language
    • Metaprogramming Facilities
    • Ruby on Rails
  8. JavaScript 
    • Web Front-end (with HTML5 & CSS)
    • Object-based Programming 
    • Node.JS
    • Statistical, Numerical Computing 
  9. Haskell
    • Purely Functional Programming
  10. Erlang
    • Fault-tolerant Real-time Parallel Distributed Computing
    • Modifiable without downtime


Current Preference

    If you need complete control over the environment, go down to C++. Otherwise, use Scala, Java. 

    "যৌতুক প্রথামুক্ত বাংলাদেশ" গড়ার পথে অগ্রযাত্রা

    একবিংশ শতাব্দীতে এসেও যৌতুকসহ বিভিন্ন কারণে দেশে নারী নির্যাতনের হার এখনও আশঙ্কাজনক পর্যায়ে। দেশে এখনও অহরহ বাল্যবিবাহ ঘটে।নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় গ্রামে গ্রামে নারীদের মাঝে ঐক্য গড়ে উঠবে – এই লক্ষ্যে কাজ করার সময় এসেছে।

    নাগরিক শক্তি নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় বদ্ধপরিকর। আমরা প্রত্যাশা করি, নারীরাই দায়িত্ব নিয়ে এগিয়ে আসবেন।

    আমরা কি পারি না, যেসব বৃদ্ধ বাবা অর্থাভাবে মেয়ের বিয়ে দিতে পারছেন না – তাদের চোখের অশ্রু মুছে পাশে গিয়ে দাঁড়াতে?
     
    যুবকরা কেন পিছিয়ে থাকবে? গ্রামের যেসব যুবক আড্ডা দিয়ে সময় কাটাত, তারা কি চাইলেই পারে না এক হয়ে নতুন নতুন উদ্যোগ নিয়ে সবার চোখে “হিরো” হয়ে উঠতে? পারে না যৌতুক, বাল্যবিবাহ এবং এসব থেকে উদ্ভূত বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা, যেমন নারী নির্যাতন, এর বিরুদ্ধে সবাই মিলে অবস্থান নিতে? 

    “যৌতুক প্রথামুক্ত বাংলাদেশ” – এই লক্ষ্য নিয়ে এখনই কাজ শুরু হোক। নারীরা ঐক্যবদ্ধ হলে এক একটি ইস্যুতে তারা নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পারেন। নাগরিক শক্তি এক্ষেত্রে সবরকম সহায়তা করবে।
     
     
    আজকের পত্রিকায় 
     
    “ময়মনসিংহে দুস্থ, অস্বচ্ছল ও গরিব পরিবারের ১০ জোড়া বর-কনের যৌতুকবিহীন বিয়ে সম্পন্ন করেছে বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ইসলাহুল মুসলিমিন পরিষদ বাংলাদেশ।যৌতুকবিহীন এ বিয়ে পড়ান ওই সংগঠনের সভাপতি ও ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠের খতিব আল্লামা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ।

    এদের মধ্যে লিলি নামের এক মেয়ের যৌতুকের অভাবে বিয়ে হচ্ছিল না। যৌতুকের কারণে দুই দফায় দু’টি ভালো সম্বন্ধ ছুটে যায়। এ কারণে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছিলেন লিলি’র বাবা-মা, এমনকি লিলিও। যৌতুক ছাড়া বিয়ে হওয়ায় খুশি হয়েছেন লিলি ও তার বাবা-মা।

    যৌতুকবিহীন বিয়ে উপলক্ষ্যে সালতা গ্রামে ছিল অন্য রকম আমেজ। পাঞ্জাবি আর টুপি পড়ে বর আর লাল বেনারশি পড়ে কনেদের বিয়ের আসরে আনা হয়।

    বিয়ের উপহার হিসেবে নতুন দম্পত্তিরা পেয়েছেন একটি করে ভ্যান ও সংসার সাজানোর যাবতীয় উপকরণ।

    বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ইসলাহুল মুসলিমিন পরিষদ বাংলাদেশের সভাপতি আল্লামা ফরিদ উদ্দিন মাসুদ বলেন, ‘আমাদের দেশে যৌতুক একটি ভয়াবহ সামাজিক ব্যাধি হিসেবে দেখা দিয়েছে। শুধুমাত্র যৌতুকের কারণেই অনেক অস্বচ্ছল পরিবারের মেয়েদের বিয়ে হয় না।”

    বাংলাদেশের নারীরা

    স্বপ্নের বাংলাদেশ অভিমুখে অগ্রযাত্রা (২৬.০৪.২০১৪)

    বাংলাদেশ দৃপ্ত পদক্ষেপে এগিয়ে যাচ্ছে।


    প্রতিদিন নতুন নতুন ক্ষেত্রে আমাদের অগ্রযাত্রার খবর প্রকাশিত হচ্ছে। 

    আজকের (২৬.০৪.২০১৪) পত্রিকায় আমাদের অগ্রযাত্রার খবর



    অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ বাংলাদেশের পথে অগ্রযাত্রা 


    তথ্য প্রযুক্তিগত উৎকর্ষে উন্নত বাংলাদেশ অভিমুখে অগ্রযাত্রা 
    বাংলাদেশ তথ্য প্রযুক্তিগত উৎকর্ষে উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর সাথে প্রতিযোগিতা করবে। 


    নারী অধিকার প্রতিষ্ঠা
    বাল্যবিবাহ রোধ, “যৌতুক প্রথামুক্ত বাংলাদেশ”, নারী নির্যাতন রোধ, ইভটিজিং রোধ 




    অন্যায়-অপরাধ-দুর্নীতি-সন্ত্রাসমুক্ত বাংলাদেশ অভিমুখে অগ্রযাত্রা

    U.S.: A ‘Rising Star’ Of Global Manufacturing

    “A new ranking of the competitiveness of the world’s top 25 exporting countries says the United States is once again a “rising star” of global manufacturing thanks to falling domestic natural gas prices, rising worker productivity and a lack of upward wage pressure.

    The report, released on Friday by the Boston Consulting Group (BCG,) found that while China remains the world’s No. 1 country in terms of manufacturing competitiveness, its position is “under pressure” as a result of rising labor and transportation costs and lagging productivity growth.

    The United States, meanwhile, which has lost nearly 7.5 million industrial jobs since employment in the sector peaked in 1979 as manufacturers shipped production to low-cost countries, is now No. 2 in terms of overall competitiveness, BCG said.

    The biggest factor driving the U.S. rebound, according to BCG: cheap natural gas prices, which have tumbled 50 percent over the last decade as a result of the shale gas revolution.

    Also contributing to the country’s attractiveness, according to BCG, is “stable wage growth” – a euphemism for the fact that, in inflation-adjusted terms, industrial wages here are lower today than they were in the 1960s even though worker productivity has doubled over the same period of time.

    “Overall costs in the U.S.,” the report’s authors write, “are 10 to 25 percent lower than those of the world’s ten leading goods-exporting nations other than China” and on par with Eastern Europe. [1]

    Here is BCG’s ranking of the world’s Top 10 countries in terms of manufacturing competitiveness:

    1. China

    2. United States

    3. South Korea

    4. United Kingdom

    5. Japan

    6. Netherlands

    7. Germany

    8. Italy

    9. Belgium

    10. France

    Previous Posts

    References

    জনতার ঐক্যের শক্তির মাধ্যমে অন্যায় এবং অন্যায়কারীকে রুখে দাঁড়ানো – ৩

    সত্যসন্ধানী সাংবাদিকদের পেটানোর দায়ে অভিযুক্ত অসভ্য ব্যক্তিদের পরিচয় উন্মোচিত হোক

    সাংবাদিকরা জনগণের বৃহত্তর কল্যাণের স্বার্থে সত্য অনুসন্ধান এবং প্রকাশ করেন। তারা পদাধারী ব্যক্তিদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করেন। এতে কোন অপরাধীর অপরাধ উন্মোচিত হওয়ার দায়ে সাংবাদিক পেটানোর মত ঘটনা ঘটান কিছু অসভ্য বর্বর অপরাধী।

    এখন থেকে সাংবাদিকদের উপর হাত তোলার দুঃসাহস কেউ দেখালে সেই অসভ্য বর্বর ব্যক্তিদের পরিচয় সারা পৃথিবীর সামনে উন্মোচিত করা হবে এবং সময় এলে আইনের মুখোমুখি করা হবে।

    সারা দেশের সাংবাদিকরা এই ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধ হবেন।    


    “হাসপাতালে কোন রোগী মারা গেলে বা গুরুতর আহত হলে সাংবাদিকেরা সংবাদ ও ছবি সংগ্রহ করবে এটাই স্বাভাবিক। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসকদের অবহেলার বিষয়টি ধামাচাপা দিতে সাংবাদিকদের পেটানো কোন সভ্য মানুষের কাজ নয়। 


    রাজশাহী মেডিকেল কলেজে সাংবাদিকদের ওপর ডাক্তারদের হামলার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বগুড়া প্রেসক্লাবে সাংবাদিক ইউনিয়ন বগুড়া’র উদ্যোগে আয়োজিত সমাবেশে সাংবাদিক নেতারা এসব কথা বলেন।

    বক্তারা বলেন, ডাক্তারি একটি মহৎ পেশা। রোগীদের ভালোমন্দ তাদের ওপর নির্ভর করে। অথচ কথায় কথায় তারা যদি আইনকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে ধর্মঘট বা কর্মবিরতি পালন করেন তাহলে অসুস্থ ও আহত মানুষদের কি পরিণতি হবে। শুধু তাই নয়, আদালত থেকেও কোন আদেশ হলে সংশ্লিষ্ট ডাক্তাররা ধর্মঘট বা কর্মবিরতি পালন করে প্রশাসনের বিরুদ্ধে দুঃসাহস দেখান।

    তারা আরও বলেন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও ঢাকার মিডফোর্ড হাসপাতালে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে ইন্টার্ন ডাক্তারদের সাংবাদিক নির্যাতন, নিপীড়নের ঘটনা শুধু অমানবিকই নয়, বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলাও বটে। সাংবাদিকের দ্রুত সঠিক চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করাসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িত চিকিৎসক নামধারী সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।

    সাংবাদিক ইউনিয়ন বগুড়া’র সভাপতি সৈয়দ ফজলে রাব্বী ডলারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোমিনুর রশিদ সাইনের পরিচালনায় মানববন্ধনে বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রেজাউল হাসান রানুসহ স্থানীয় সাংবাদিকেরা উপস্থিত ছিলেন।” 


    আরও 

    শিল্পের মালিকরা যখন কর্মীদের নিয়ে জয়ী হন

    “Western Marine workers were trained to use the protective gear. Notices in English and Bangla, and pictorial signs for illiterate workers, were put up throughout the shipyard. At first, some workers didn’t want to wear hard hats, boots and goggles in Chittagong’s hot climate. But those who didn’t follow rules received verbal warnings, got further training and were even fined or fired. Western Marine also gave bonuses to workers who used proper safety gear. Strict enforcement at the shipyard had almost immediate results. Over the next 15 months, Western Marine dramatically reduced its injury rate by 99 percent, to 10 a month by June 2012, from 1,000.

    Western Marine had not intended to seek international certification but ended up doing so since it was using those guidelines anyway. By August 2012, the shipyard was awarded the world’s most reputable occupational health and safety management standard, OHSAS 18001. It also received ISO 14001, the internationally recognized standard for environment management. It was the only shipyard and one of few companies in Bangladesh to have both certificates. Western Marine says the certifications have led to new ship orders from New Zealand, Tanzania and Kenya.

    During the 40-month partnership between Western Marine and GIZ, the shipbuilder paid 250,000 euros of the cost of equipment and implementing safety programs while the German aid agency contributed 265,000 euros. It was a significant amount of money for Western Marine, but the company found that treatment costs for workers at its clinic dropped from 15,000 euros a year in 2010 to only 341 euros in 2012. Workers were far more productive in general. There was also a strong business case for the OHSAS and ISO certifications, since they are increasingly required for eligibility to bid on international shipping contracts.” [1]


    নাগরিক শক্তির অর্থনৈতিক দর্শন

    নাগরিক শক্তির অর্থনৈতিক দর্শনের মূলে রয়েছে দুটি বিষয়

    • প্রত্যেকটি মানুষের মাঝে বিপুল শক্তি লুকিয়ে আছে। এই শক্তি জাগ্রত হয় এমন ব্যবস্থা চালু করতে হবে। 
    • Win-win, Non-zero sum games. এমন ব্যবস্থা যেখানে সব পক্ষই জিতবে। 


    সমাজতান্ত্রিকরা মনে করেন, পুঁজিবাদের বিকাশ ঘটলে পুঁজিবাদীরা শ্রমিক শ্রেণী থেকে লুট করে ধনী হন। কিন্তু আমরা বিশ্বাস করি, এমন পদ্ধতি চালু করা সম্ভব যেখানে সব পক্ষ সর্বোচ্চ লাভবান হবে, সব পক্ষই জিতবে। পুঁজিবাদের বিকাশ ঘটলে মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়। শিল্পের মালিকরা শ্রমিকদের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে ব্যবস্থা নিলে, কারখানার পরিবেশ উন্নত করলে অধিকতর উৎপাদনশীলতা থেকে মালিকরা লাভবান হন। শ্রমিকদের আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটলে তারা শিল্প পণ্য আরও বেশি কেনেন। এভাবে শিল্পের বিকাশ ত্বরান্বিত হয়। [2]

    Western Marine এর ক্ষেত্রে আমরা দেখেছি, কর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত, স্বাস্থ্য সুবিধা নিশ্চিত করার পর কর্মীদের উৎপাদনশীলতা বেড়েছে। স্বাস্থ্য খরচ কমে এসেছে। আগে যেখানে প্রায় ৩৫০০ কর্মীর মাঝে ১০০০ জন প্রতিমাসে আহত হয়ে উৎপাদনশীলতা কমিয়ে দিতেন সেখানে এসেছে বিশাল পরিবর্তন। নিরাপত্তা – স্বাস্থ্য বিষয়ক বিদেশী সারটিফিকেশান পাওয়ার পর নতুন নতুন দেশ থেকে অর্ডার আসছে।

    এটা Win-win, Positive-sum game এর একটা উদাহরণ – এমন ব্যবস্থা যেখানে সব পক্ষই জিতবে। 


    “Bangladesh is the second largest maker of “ready-made garments” after China. The industry helped annual economic growth reach 6 percent in recent years; garments represent more than 80 percent of the country’s exports. Bangladesh’s garment factories employ about 3.8 million people, most of whom are women.

    These steady factory jobs have raised incomes and help lift millions out of abject poverty. Development and public health experts acknowledge that this employment helped Bangladesh dramatically improve child and maternal health. Indeed, it is one of only eight countries to have reduced deaths of children below age five by at least two-thirds since 1990 in accordance with the United Nations’ Millennium Development Goals.
    Improving garment factories is imperative for Bangladesh.

    Change can happen in Bangladesh. It has before. The country, for instance, has a surprisingly effective cyclone warning system that relies on village volunteers. This simple, grass-roots system has been credited with saving tens of thousands of lives during violent storms. [3]

    Safety standards can be upheld if they’re taken seriously enough, as they have been in Bangladesh’s oil and gas industry.” [1]



    References
    My Articles on Positive-Sum Games

    Basic Element Of Novel Computing Hardware

    Basic Element Of Novel Computing Hardware

    The main requirement for the basic element of novel computing hardware is a physical element that we can make work as an operator (special case: binary operator) that takes 2 or more inputs and produces consistent output according to the laws it follows. 


    One specialization for the theoretical foundation is Boolean Algebra [1]. But there is no requirement for the operators to accept values only of 2 types, as Boolean Algebra does. The only requirement is consistency.  

    For example, Transistor, which acts as the basic element of current-generation computers, acts as a binary operator with its three terminals.

    Whatever the hardware 

    • Molecular
      • DNA or otherwise
    • Optical
    • Quantum
    • Nanotube 

    the basic element from which the computer is built, has to act as an operator.


    Now, there are of course other requirements
    • One is that the operator, implemented as a physical element, has to work really fast; faster than the switching time of current generation transistors. Otherwise, why would we leave silicon-based transistors behind? 
    • And the element has to be really small. Otherwise, how would you pack billions of elements required to build the computer in a small space? 

    We need new elements as basic computer elements and new Architecture for Computers to keep Moore’s Law [2] in effect. 


    So, what’s your guess for the post-Silicon era? 



    References