এ বি সিদ্দিক অপহরণের রহস্যভেদ


আবু বকর সিদ্দিক অপহরণের কেইসটা ভালভাবে অ্যানালাইসিস করা উচিত।

“অপহরণের পর আমাকে যে স্থানটিতে নিয়ে যাওয়া হয়, সেখানে পৌঁছাতে আনুমানিক সাড়ে তিন ঘণ্টা লাগে। এলাকাটি কিছুটা উঁচু-নিচু মনে হয়েছিল। 

ওই বাড়িতে যেতে মনে হয়েছে, দুবার ফেরি পার হয়েছে। গাড়িটি উঁচু-নিচু পথ পেরিয়ে গেছে, তাই মনে হয়েছে এটি গাজীপুর বা কালীগঞ্জের কোনো স্থান হবে। তবে কখনো হাইওয়ে, আবার কখনো ছোট সড়ক ধরে গাড়িটি এগোচ্ছিল বলে মনে হয়েছে। 

আমাকে তুলে নেওয়ার পর গোপন আস্তানায় পৌঁছার আগে অপহরণকারীরা দুই দফা গাড়ি বদল করেছে। আমার হাত-পা-চোখ বেঁধে মাইক্রোবাসের সিটে ফেলে রাখে ওরা। ফলে বুঝতে পারছিলাম না কোথায় যাচ্ছি। মনে হলো, একটি ফেরি পার হওয়ার পর গাড়িটি বদল করা হলো, তখন চারজন অপহরণকারী নেমে যায়।’ গাড়িটি কোথাও টোল দেওয়ার জন্য দাঁড়িয়েছিল, এমনটা তাঁর মনে হয়নি। তখন তিনি খুব ‘নার্ভাস’ ছিলেন, তাই সবকিছু মনে করতে পারছেন না বলে জানান।  

ওই বাড়িতে আবু বকর যখন পৌঁছান, তার কিছুক্ষণ পর পাশের মসজিদ থেকে মাগরিবের আজান শোনা যাচ্ছিল। 

আবু বকরের জবানিতে আরও জানা গেল, রাতে ছেড়ে দেওয়ার জন্য তাঁকে গাড়িতে তুলে ঘণ্টা দেড়েক পর একটি জায়গায় নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। সেখানে গাড়ি থামিয়ে চোখ থেকে কাপড় খুলে দেওয়ার সময় তাঁকে বলা হয়, ‘পেছনের দিকে তাকাবি না। সোজা হেঁটে সামনে যাবি।’ 

‘পরে জানতে পারি, এটি মিরপুর ১ নম্বর আনসার ক্যাম্পের সামনের রাস্তা। [1] 

  • যে পরিমাণ সময়ের কথা তিনি বলছেন – 
    • নারায়ণগঞ্জের ভুঁইগড় থেকে থেকে আনুমানিক সাড়ে ৩ ঘন্টার মত
    • ঘন্টা দেড়েক পর – মিরপুর ১ নম্বর আনসার ক্যাম্প  
  • পরিবহণের সম্ভাব্য ধরণ 
  • পাশে কোথাও মসজিদ 
  • আরও কিছু প্রশ্ন করা যায় – ফেরি পার হওয়ার আগে কতক্ষণ? পার হওয়ার পর কতক্ষণ? 

জায়গাটা কোথায় হতে পারে?

ছেড়ে দেওয়ার আগ মুহূর্তটি সম্পর্কে আবু বকর সিদ্দিক জানান, রাতে দলনেতা এসে বাড়িটির ওই দুই তদারককারীর সঙ্গে কথা বলছিল। তাদের কথায় মনে হচ্ছিল, মূল পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হচ্ছে না। এদের মধ্যে একজন এসে বলল, ‘পুরো এলাকা পুলিশ ও র‌্যাব তল্লাশি চালাচ্ছে। খুঁজতে খুঁজতে এখানেও চলে আসতে পারে।’


পুলিশ র‌্যাব কোথায় কোথায় তল্লাশি চালিয়েছিল? তথ্য ব্যবহার করে জায়গাটা আইডেন্টিফাই করা সম্ভব না?

গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সম্পর্কযুক্ত তথ্য খুঁজে বের করে ব্যবহার করা

  • ‘পুরো এলাকা পুলিশ ও র‌্যাব তল্লাশি চালাচ্ছে। খুঁজতে খুঁজতে এখানেও চলে আসতে পারে।’
  • পুলিশ র‌্যাব কোথায় কোথায় তল্লাশি চালিয়েছিল? 
  • ৩৫  ঘন্টা – খুব বেশি না। পুলিশ – র‌্যাবের বিভিন্ন দল কোন সময়ে কোথায় খুঁজছিল – এ থেকে সম্ভাব্য স্থান সম্পর্কে ধারণা করা যায়? 

বাড়িটা আইডেন্টিফাই করতে পারলে অপহরণকারীদের আইডেন্টিফাই করার ক্ষেত্রে আমরা এগিয়ে যাব।  
রেফরেন্স

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s