নাগরিক ঐক্যের আলোচনা সভা – সমাবেশ – উদ্যোগ [11.20.14]

Large Scale Engineering Projects 



Business & Economy




তরুণ প্রজন্ম




আলোচনা সভা – সমাবেশ – উদ্যোগ

“আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান ড. কামাল। 

ড. কামাল হোসেন বলেন, নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের ঘটনায় আইনজীবী চন্দন সরকার ও তাঁর গাড়িচালক খুনের পরে নারায়ণগঞ্জের সর্বস্তরের আইনজীবীরা যে আন্দোলন গড়ে তুলেছিল তা সারা দেশের আইনজীবীদের জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য সাত খুন, মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীসহ নারায়ণগঞ্জে সংঘটিত সব হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার করতে হবে। নারায়ণগঞ্জের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে হবে।
সংবিধানপ্রণেতা কামাল হোসেন আরও বলেন, সংবিধান সমুন্নত রাখা, আইনের শাসন ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার জন্য দেশের ৬৭টি বারের ৪০ হাজার আইনজীবীকে রাজনৈতিক মতভেদ ভুলে পেশাগত ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। 

আইনজীবী মাহবুবুর রহমান মাসুমের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তব্য দেন গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি সুব্রত চৌধুরি, সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল বারী, সহসভাপতি আসাদুল্লাহ তারেক, হেলালউদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান, সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস জুয়েল, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এবি সিদ্দিক, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খলিলুর রহমান, আহসানুল করিম চৌধুরী, রমজান আলী, এম এ ওহাব প্রমুখ। 

সম্মেলনে হারুণ অর রশিদকে সভাপতি ও আওলাদ হোসেনকে সাধারণ সম্পাদক করে গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতির নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার কমিটি গঠন করা হয়। 

আইনজীবী সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, সাত খুনের ঘটনার পরপরই ড. কামাল হোসেন নারায়ণগঞ্জের আইনজীবীদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন।”


Related Links


আলোচনা সভা – সমাবেশ – উদ্যোগ

“ছাত্রীটি তাকে জানাল, লেখাপড়ায় প্রস্তুতি তার ভালো না হতে পারে, কিন্তু তার পরীক্ষা অবশ্যই ভালো হবে। হেডমাস্টার জানতে চাইলেন, কীভাবে- মেয়েটি বলল পরীক্ষায় প্রতি বিষয়ে বহু নির্বাচনী (MCQ) নৈর্ব্যক্তিক ৪০ শতাংশ থাকে সে তার পুরোটা পেয়ে যাবে- কাজেই পাস করা নিয়ে তার বিন্দুমাত্র দুশ্চিন্তা নেই! হেডমাস্টার ভদ্রলোক খুবই দুঃখ নিয়ে আমাকে বললেন, মেয়েটি একটুও ভুল বলেনি।  

আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাটার সবকিছু নতুন করে দেখার সময় হয়েছে।”

“এটা বলে দেওয়ার অপেক্ষা রাখে না যে, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে জনগণ বেছে নেওয়ার সুযোগ পায়নি। অর্ধেকের বেশি আসনে ভোটাভুটিই হয়নি। 

আওয়ামী লীগের বিকল্প হতে পারে আরও প্রগতিশীল, আরও আধুনিক, আরও দক্ষ একটা রাজনৈতিক দল।  

আমরা যারা দেশের সাধারণ নাগরিক, তারা কিন্তু চাই গণতন্ত্র অব্যাহত থাকুক।  

দেশের প্রয়োজনে সাড়া দেওয়ার জন্য সব সময়েই তরুণ প্রজন্ম প্রস্তুত আছে।”

“বিএনপির সাবেক এমপি মেজর আখতার যখন আমায় ফোন করে সেখানে যেতে বললেন- তখন আমি এক কথায় রাজী হয়ে গেলাম। 

আখতার সাহেব একটি সংবাদ সম্মেলন করতে চান। দেশের নাম করা ৮টি এনজিও সম্প্রতি সংবাদ সম্মেলন করে সেনাবাহিনীর জন্য ভূমি অধিগ্রহণের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করেছে। সার্বিক বিবেচনায় আমার মনে হয়েছে- একটি জাতি- একটি দেশ এবং একটি সরকারের জন্য সবচেয়ে বড় মর্যাদার প্রতীক হলো একটি সুসংবদ্ধ, শক্তিশালী এবং পরাক্রান্ত সামরিক বাহিনী। আমি সর্বদা স্বপ্ন দেখি জল-স্থল এবং আকাশে দাপিয়ে বেড়ানো অমিত বিক্রম একটি ত্রিমাত্রিক শক্তি সম্পন্ন সামরিক বাহিনীর। 

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী এবং বিমান বাহিনী কর্তৃপক্ষ এবং সাধারণ মানুষের চেনা-জানার মধ্যে বিস্তর ফারাক রয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যতো দ্রুত তাদের গণ সম্পৃক্ততা বাড়াবে ততই মঙ্গল। অন্যথায় একজন অবসরপ্রাপ্ত মেজর কিংবা সাবেক সংসদ সদস্য শত চেষ্টা করেও জনমনের বিরূপ প্রভাব দুর করতে পারবে না।”


অন্যান্য রাজনৈতিক দল ও রাজনীতিবিদরা 


International Relations – Foreign Policy – Diplomacy 



Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s