A Collection Of Reports From World Economic Forum

 

World Economic Forum: Reports

Industrial Internet of Things: Unleashing the Potential of Connected Products and Services

 

The Future of Electricity: Attracting investment to build tomorrow’s electricity sector

 

The Business of Creativity: Seeking Value in the Digital Content Ecosystem

 

Global Risks 2015 10th Edition

 

The Future of Manufacturing: Driving Capabilities, Enabling Investments

 

Scenarios for Ukraine: Reforming institutions, strengthening the Economy after the crisis

 

Outlook on the Global Agenda 2014

Blueprint for Developed Bangladesh: Compilation of Articles

#LetsBuildNations

বাংলাদেশ, বাংলাদেশের সমস্ত কিছু, দেশের ১৬ কোটি মানুষের জীবন, জীবনের বিভিন্ন দিক – পরিচালিত হবে আমার লেখাগুলো এবং সামনে আরও যেসব লেখা আসবে – সবগুলো লেখার ভিত্তিতে। প্রত্যেকক্ষেত্রে দিক নির্দেশনা নির্ধারণ করে দেওয়া হবে।

ক্ষমতায় গিয়ে পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন এবং প্রতিষ্ঠিত করা হবে।

Engineering & ICT Industries

  1. “Large Scale Engineering” In Bangladesh  [TahsinVersion2.com]
  2. Light Engineering
  3. Reform & Development of Power Sector in Bangladesh  [TahsinVersion2.com]
  4. চট্টগ্রাম বন্দরের উন্নয়ন দেশের অর্থনীতির চাকা ঘুরিয়ে দিতে পারে
  5. তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিলিয়ন ডলার রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জন [TahsinVersion2.com] 

Finance & Economy; Commerce & Industries

  1. Economic Philosophy of Nagorik Shakti
  2. নাগরিক শক্তির অর্থনৈতিক উন্নয়ন পরিকল্পনার রূপরেখা
  3. ফাইনান্সিয়াল সিস্টেমে সংস্কার
  4. দুর্নীতি দূরীকরণ এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে অর্থনৈতিক উন্নতি
  5. Entrepreneurship Development
  6. দারিদ্র্য দূরীকরণ
  7. Economics 101 …

Development Plans: Dhaka City Corporation

  1. Plans for Dhaka City Corporation (Work in Progress …)  [TahsinVersion2.com]
  2. Smart City: At My Ventures  [TahsinVersion2.com]

Development Plans: Chittagong City Corporation

Tourism Industry

  1. Tourism – “Beautiful Bangladesh”, “রূপসী বাংলা”

Agriculture Sector

  1. কৃষি – প্রযুক্তি চ্যালেঞ্জ

Infrastructure

  1. চট্টগ্রাম বন্দরের উন্নয়ন দেশের অর্থনীতির চাকা ঘুরিয়ে দিতে পারে
  2. Reform & Development of Power Sector in Bangladesh  [TahsinVersion2.com]
  3. বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়ন

Education

  1. Nagorik Shakti: Higher Education Reform & Development Plans  [TahsinVersion2.com]
  2. নাগরিক শক্তির শিক্ষা উন্নয়ন পরিকল্পনার রূপরেখা
  3. জ্ঞানের আলোয় উন্নত বাংলাদেশ : মেধাভিত্তিক প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মেধার উৎকর্ষ সাধন
  4. বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য Ranking System প্রবর্তন
  5. Entrepreneurship Development – (Daffodil)
  6. Research Institute নিয়ে পরিকল্পনা
  7. Primary, ….
  8. বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াডের সংস্কৃতি
  9. প্রোগ্রামিং-এ হাতেখড়ি

Youth Empowerment  #YouthEmpowerment

  1. তরুণ প্ল্যাটফর্ম

Women Empowerment  #WomenEmpowerment

  1. বাংলাদেশে নারী ক্ষমতায়নের মাধ্যমে সামাজিক অগ্রগতি

Minority Rights  #MinorityRights

Constitution Reform; Administrative Reform

  1. সংবিধান সংশোধন
  2.  

International Relations

  1. বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্ম, নাগরিক সমাজ ও Law Enforcement Agencies ‘র পাশে যুক্তরাষ্ট্র সরকার
  2. বাংলাদেশের পাশে United Nations
  3. বাংলাদেশের পাশে World Bank
  4. বাংলাদেশের পাশে যুক্তরাজ্য সরকার
  5. বাংলাদেশ – ভারত সম্পর্ক

Political Strategy

দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ #SayNoToCorruption

মাদকমুক্ত বাংলাদেশ #StopDrugTrafficking

  1. দেশের সন্ত্রাসীদের গডফাদার দুর্নীতিবাজদের ভয়াবহতার চিত্র – ২ [বদিরা ৬ ভাই]  [TahsinVersion2.com]

Sports: Bangladesh Cricket Team

  1. বাংলাদেশ ক্রিকেট দল নিয়ে পরিকল্পনা  [TahsinVersion2.com]
  2. বাংলাদেশ ক্রিকেট দল নিয়ে স্বপ্ন  [TahsinVersion2.com]
  3. “Digital Sports” & Sports Science: At My Ventures  [TahsinVersion2.com]

সরকার পরিচালনা

  1. মন্ত্রণালয়, সচিবালয় এবং বাজেট বরাদ্দ সমন্বয়ের মাধ্যমে সরকারের নির্বাহী বিভাগ পরিচালনা [Published: August 24, 2014] [TahsinVersion2.com]
  2. অর্থ মন্ত্রণালয়, শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়; বাংলাদেশ ব্যাংক

Election Manifesto – রূপরেখা

Social Media & Big Data Strategy
Organization

Economics 101: …

বাংলাদেশ মালয়েশিয়া থাইল্যান্ড

নাগরিক শক্তির নির্বাচনী ইশতেহারের রূপরেখা (Election Manifesto)

প্রবাসী বাংলাদেশী – Britain ….

আজকের উপলব্ধিতে নাগরিক ঐক্য [০৪.০৩.১৫]

 

মাদকমুক্ত বাংলাদেশ  #StopDrugTrafficking #Nagorik

Youtube Playlist (Compiled By Tahsin):

#StopDrugTrafficking – South Asia & South East Asia Region

 

 

“আটক মাদকের মধ্যে রয়েছে ৪০ হাজার ৩শ’ ৮১ বোতল ফেনসিডিল, ৬ লাখ ১৪ হাজার ৩শ’ ১৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ১ লাখ ২ হাজার ৪শ’ ১১টি যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট, ২৩ হাজার ২শ’ ৭০ বোতল বিদেশি মদ, ১ হাজার ৯৬ লিটার স্থানীয় (দেশীয়) মদ, ১ হাজার ৬৯ ক্যান বিয়ার, ৫শ’ ৮১ কেজি গাঁজা, ২ কেজি ৫শ’ ৪৫ গ্রাম হেরোইন, ২ হাজার ৯শ’ ৮৬টি নেশাজাতীয় ইনজেকশন এবং ২ লাখ ৮৮ হাজার ৮শ’ ১৯টি বিভিন্ন ধরনের ট্যাবলেট।

একই মাসে বিজিবির অভিযানে উদ্ধার অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে ৮টি পিস্তল, ৬টি বন্দুক, ৪টি ম্যাগজিন, ৩টি ককটেল ও ৩৬ রাউন্ড গুলি।”

 

 

International Relations – Foreign Policy – Diplomacy

Bangladesh – India Relations

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

“বাংলাদেশের সঙ্গে স্থল সীমান্ত বা ছিটমহল বিনিময় চুক্তি সম্পাদনে আগেই সায় দিয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সায় দিলেন তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি সইয়ের ব্যাপারেও। এ বিষয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছেন।

এই চিঠির কথা উল্লেখ করে আজ বুধবার কলকাতার বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকার অনলাইনে লেখা হয়েছে, ‘পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ—পানির ভাগ নিয়ে দুই পক্ষেরই কিছু দাবিদাওয়া রয়েছে। এই চুক্তি নিয়ে যে জট পাকিয়েছে, তা আলোচনার মাধ্যমে কাটিয়ে ফেলা সম্ভব।’”

বিলীন হওয়ার পথে বিএনপি

বিলীন হওয়ার পথে বিএনপি

1.

“দেশের রাজনীতিকে আরো আধুনিকীকরণে মাঠে নামছেন শতাধিক সাবেক এমপি ও অর্ধশতাধিক উপজেলা চেয়ারম্যান। এরা সবাই বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জেনারেল জিয়াউর রহমানের আদর্শের অনুসারী।
সাবেক যুগ্মমহাসচিব ও সংসদ সদস্য আশরাফ হোসেন বলেন, দেশে সুশাসন ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করার অঙ্গীকার নিয়ে তারা ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন। জেনারেল জিয়াউর রহমানের আদর্শ বিচ্যুৎ, জাময়াতপন্থি ও দুনীর্তিবাজ নেতারা এ তালিকায় নেই।
– ২৯.০৯.১৪

3.

BDR Mutiny: Bangladesh 2009

4.

আমাদের দেশের প্রচলিত রাজনৈতিক দলগুলো ক্রমান্বয়ে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে।

জনবিছিন্ন হতে হতে বিএনপি’র মত এককালের বড় দল শক্তিহীন হয়ে ধীরে ধীরে অস্তিত্ব সংকটের দিকে যাবে।

আওয়ামী লীগ সম্পূর্ণ একতরফাভাবে ৫ জানুয়ারিতে “তামাশার” একটি নির্বাচন করে ফেলেছে (যেখানে ৩০০ টির মধ্যে ১৫৪ টি নির্বাচনী এলাকায় কোন নির্বাচন হয়নি) অথচ বিএনপি এখনও জনগণকে নিয়ে অহিংস কিন্তু শক্তিশালী কোন আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি।
জনগণ সঙ্গত কারণেই ভাবে – জীবনের ঝুঁকি নিয়ে, জেল-জুলুম সহ্য করে বিএনপির আন্দোলনে যে নামবো – বিএনপি ক্ষমতায় গিয়ে নতুন কি দেবে?

বিএনপি’র হিসেব ছিল, আলেম ওলামা সমাজ এবং মাদ্রাসা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গদের অধিকাংশ ভোট বিএনপি’র পক্ষে পড়বে।
কিন্তু আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আলেম ওলামা সমাজ এবং মাদ্রাসা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গদের প্রতিটি ভোট (৩৫ লক্ষাধিক ভোট) নাগরিক শক্তির প্রার্থীর পক্ষে পড়বে।
(বিএনপি প্রচার করে, তারা ইসলামী চেতনাসম্পন্ন। তবে চরম দুর্নীতি – অন্যায় – সন্ত্রাস এ নিমজ্জিত থেকে কিভাবে ইসলামী চেতনা ধারণ করা যায় – তা আমাদের জানা নেই!)

বিএনপি জোটে আছে “বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী”, যেটি ৭১ এর আগে ছিল “জামায়াতে ইসলামী, পাকিস্তান”এর [1] একটি শাখা।

বর্তমানে জামায়াতে ইসলামীর নির্বাচন কমিশনে বৈধ নিবন্ধন নেই।

প্রকৃতপক্ষে, কয়েকজন মানবতাবিরোধী অপরাধী এবং কিছু চরমপন্থি (Extremist) সন্ত্রাসী ছাড়া জামায়াত – শিবির বলে কিছু অবশিষ্ট নেই।
বিএনপি দাবি করে তাদের জোটটি “২০ দলীয়”।
কিন্তু বিশ্লেষণ করলে আমরা দেখি, এই দলগুলোর মাঝে আছে “সাম্যবাদী দল (একাংশ)” – যেটি কয়েকজন প্রতারক ব্যক্তির সমষ্টি (সাম্যবাদী দলের সাথে তাদের কোনকালে কোন সম্পর্ক ছিল না) এবং নির্বাচন কমিশনে তাদের বৈধ নিবন্ধন নেই।

বিএনপি শীর্ষ নেতৃত্বের মেধাহীনতা এবং নির্বুদ্ধিতা স্পষ্ট হয় – যখন আমরা দেখি – এই প্রতারক ব্যক্তিদের প্রকৃত পরিচয় নিরূপণ না করেই বিএনপি তাদের “দল” হিসেবে জোটে বরণ করে নেয় এবং ১৯ দলীয় জোটের সম্প্রসারণ করে নিজেদের “২০ দলীয় জোট” হিসেবে ঘোষণা করে।
[এভাবে কয়েকজন ব্যক্তি একত্রিত হয়ে দুই জোটের কাছে যাওয়া শুরু করলে দুই জোটের সদস্য সংখ্যা শীঘ্রই ৩০ বা ৪০ ছাড়াতে পারে এবং দেখা যাবে নির্বাচন কমিশনেও এতগুলো নিবন্ধিত দল নেই!

উল্লেখ্য, বর্তমানে নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ৪০।]

বিএনপি জোটের বাকি ১৭টি দলের কয়টি এখনও বিএনপি’র সাথে আছে আর কয়টি নতুন একটি দলে একীভূত হওয়ার অপেক্ষায় আছে – তার হিসেব বিএনপি শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে নেই!
এই ১৮ “দল”এর মাঝেও নির্বাচন কমিশনে বৈধ নিবন্ধনবিহীন দল রয়েছে।

সবচেয়ে বড় কথা – সারা দেশের মানুষ জনকল্যাণমূলক নতুন রাজনীতির স্বপ্নে বিভোর।
দেশের মানুষের কাছে বিএনপির দুর্নীতি – সন্ত্রাসের রাজনীতির যে আর অ্যাপিল নেই, সারা দেশে বিএনপি যে সাংগঠনিকভাবে অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়েছে – কিছুদিন পর পর সংবাদ সম্মেলন ডাকার মাঝে নিজেদের সীমাবদ্ধ রাখা ঢাকায় অবস্থানরত বিএনপি’র গুটিকয়েক নেতা – তা আঁচও করতে পারেননি।
(আলেম ওলামা সমাজ এবং মাদ্রাসা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গরা যে বিএনপি থেকে সরে এসেছেন – এটাও যেভাবে তারা ঢাকায় বসে সংবাদ সম্মেলন করার ফাঁকে আঁচও করতে পারেননি!)

আগামী কয়েক মাসে বিএনপি’র অত্যন্ত দুর্বল ও ক্ষীণ হয়ে ওঠা পরিষ্কার হয়ে উঠবে এবং দলটির জন্য অস্তিত্ব রক্ষা করাই চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে।

(১৪/৮/১৪)

5.

“‘দলের ঐক্য বা অভ্যন্তরীণ সংহতি এখন বড় ধরণের প্রশ্নের মুখে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলার খড়গ। সব মিলিয়ে নেতা-কর্মীরা ছন্নছাড়া হয়ে পড়েছেন।
ছাত্রদল এখন নির্জীব। ছাত্রত্ব আছে, আবার নেতৃত্ব দেওয়ার মতো উপযুক্ত—এমন নেতাই খুঁজে পাচ্ছেন না বিএনপির চেয়ারপারসন।
আর যুবদল কার্যকারিতা হারিয়ে এখন দলের অন্য সংগঠনে বিলীন হওয়ার পর্যায়ে ঠেকেছে।
আবার মূল দলের ঢাকা মহানগর কমিটি নিয়ে নতুন করে অস্বস্তিতে পড়েছেন বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব।
গত আমলে ‘হাওয়া ভবনের’ কথা মনে করে দলের প্রবীণ ও জ্যেষ্ঠ নেতাদের কেউ কেউ অস্বস্তিতে আছেন, আবার অনেকে দুর্ভাবনায় পড়েছেন।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য জমিরউদ্দিন সরকার, স্থায়ী কমিটির অপর সদস্য তরিকুল ইসলাম এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দিন আহমেদ দল নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন।”

(৩১/৮/১৪)

 
 

6.

বিএনপি গত ঈদুল ফিতরের আগে ঘোষণা দিয়েছিল, ঈদের পর “তুমুল” আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
ঈদ কেটে গেছে – কিন্তু সেরকম “তুমুল” কিছু আমাদের চোখে পড়েনি!

ব্যর্থ বিএনপি এবার ঘোষণা দিয়েছে, ঈদুল আযহার পর গড়ে তোলা হবে সেই কাঙ্ক্ষিত “তুমুল” আন্দোলন!

কিন্তু বিএনপির সাংগঠনিক অবস্থা দেখে আমাদের মনে প্রশ্ন জাগে, ঈদুল আযহার কথা যে বলছেন – এটা কি ২০১৪ সালের ঈদুল আযহা নাকি ২০১৭ সালের?

বিএনপি নেতৃবৃন্দ আজকাল প্রকাশ্যেই স্বীকার করছেন, “জনগণ বিএনপির উপর বিরক্ত”। প্রকৃতপক্ষে, এটা নেতদের নিজেদের বিরক্তির বহিঃপ্রকাশ। কারণ, বিরক্ত হতেও জনসমর্থন লাগে – আর সেটা বর্তমানে বিএনপির আছে কিনা সে বিষয়ে সন্দেহ প্রকাশ করার অবকাশ আছে।

৫ জানুয়ারিতে তামাশার একটি নির্বাচনে করে আওয়ামী লীগ অন্যায়ভাবে ক্ষমতা দখল করে রেখেছে আর তারপর এতগুলো মাস কেটে গেছে। বিএনপি আন্দোলন গড়ে তোলা দূরে থাক – বড় ধরণের সমাবেশই করতে পারেনি।

প্রকৃতপক্ষে সারা দেশের জনগণ এখন জনকল্যাণমূলক নতুন রাজনীতির স্বপ্নে বিভোর।

বিএনপির দুর্নীতি – সন্ত্রাসের রাজনীতির অ্যাপীল – জনগণ, এমনকি বিএনপি নেতাদের মাঝেও আর নেই।

বিএনপির সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডও ঢাকায় বিএনপি কার্যালয়ে বসে কিছুদিন পরপর সংবাদ সম্মেলন করার মাঝেই সীমাবদ্ধ হয়ে পড়েছে। কিছুদিন পর পর সংবাদ সম্মেলন ডেকে আর যায় হোক – সরকার পতন হয় না!

তাও একদিক দিয়ে ভালো।

গত নির্বাচনের আগে বিএনপি নেতাদের অজ্ঞাত (!) স্থান থেকে ভিডিও বার্তা পাঠাতে দেখা যেত। সেই অজ্ঞাত স্থান কি একটি গুহা নাকি বন – তা জানার সুযোগ আজও আমাদের হয়নি!

(16.09.14)

7.

“শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ‘শাবিপ্রবি ছাত্রদল’। আট অক্ষরের দু’টি শব্দ। মিছিলেও ওরা আটজন। ছাত্রদল শাবি শাখার উদ্যোগে এই মিছিলটি ক্যাম্পসের বাইরে বের হওয়ার পর মিছিলকারীরাও যেন লজ্জায় পড়ে যান!
বৃহৎ এই রাজনৈতিক দলের অঙ্গসংগঠন ক্রমশ, সংখ্যালঘু হচ্ছে এমন মন্তব্য করেছেন উপস্থিত অনেকে।”

  • “নাগরিক স্টুডেন্টস এসোসিয়েশান (NSA)” আত্নপ্রকাশের সাথে সাথে “ছাত্রদল” বিলীন হবে।

“চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যলয়ে অস্তিত্বহীন হয়ে পড়েছে ছাত্রদল।”

(22.09.14)

8.

আমরা কিছুদিন আগে দেখেছি, কয়েকজন ব্যক্তি একত্রিত হয়ে বিএনপি জোটের কাছে গেলেই – সেই অজুহাতে – বিএনপি তাদের জোটের দলসংখ্যা বাড়িয়ে ফেলে!

এভাবে ১৮ দলীয় জোটকে আমরা হঠাৎ আবিষ্কার করি ১৯ দলীয় জোট হিসেবে এবং অতঃপর ১৯ দলীয় জোটকে আমরা কিছুদিন পর আবিষ্কার করি ২০ দলীয় জোট হিসেবে!

[আমরা চিন্তিত ছিলাম! কারণ নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত দল আছে ৪০টি। অতি উৎসাহী কিছু ব্যক্তির তৎপরতায় বিএনপি জোটের দলসংখ্যা ৪০ ছাড়িয়ে গেলে বিএনপির কিছু না এসে যাক – আমরাই লজ্জায় পড়ে যাই!]
এভাবে কারণে – অকারণে – নানা অজুহাতে জোটের সদস্য সংখ্যা বাড়িয়ে ফেলার প্রক্রিয়াটি বিএনপির কাছে অত্যন্ত আকর্ষণীয় হলেও প্রক্রিয়ার সমস্যাটি এখন ধীরে ধীরে উন্মোচিত হচ্ছে!
দিন কয়েক আগে খবরে এসেছে – ২০ দলীয় জোট ভেঙে হচ্ছে ১১ দলীয় জোট!
ফলে বিএনপি নেতৃত্বাধীন অংশটি “৯ দলীয় জোট”এ – অর্থাৎ “সংখ্যালঘু” জোটে রুপান্তরিত হচ্ছে!
[তবে মন্দের ভালো – নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তার আর কোন কারণ নেই!]
(25.09.14)