আমাদের ছোট ভাই ত্বকী

 
 

ত্বকীকে নিয়ে ওর বাবার লেখাটা পড়লেই কেমন লাগে!

আমার মতই কালো জামা পছন্দ!

আকাশছোঁয়া স্বপ্ন ছিল ওর।

পড়াশোনায় কি অসাধারণ রকম ভাল! “এ” লেভেলে সারা দেশে পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়নে সর্বোচ্চ নাম্বার! মৃত্যুর আগে এই রেসাল্ট জেনে যেতে পারেনি।

বিজ্ঞান থেকে শুরু করে Mysticism সবকিছুতে ছোট্ট ছেলেটার গভীর আগ্রহ, অপার কৌতুহল। আগ্রহগুলোকে শুধু বই পড়ায় সীমিত না রেখে অনেক অনেক ভাবত আর ভাবনাগুলো নিজের জীবনেও প্রয়োগ করত।

ক্লাস এইটে থাকতেই অসাধারণ সব সাহিত্য, দর্শন পড়ে ফেলছিল।

কোরআন শরীফ পড়া, রোজা রাখা – এসবেও এগিয়ে।

দেশকে ভালবেসে দায়িত্ববোধ থেকে শাহবাগে গিয়েছিল।

কি সুন্দর কবিতা লিখত! ছবি আঁকত। গান গাইত।

“আরও একবার আমি মানুষ হয়ে মরব,
উত্থিত হতে নিষ্কলঙ্ক ফেরেশতাদের পাশে—
তবে তা থেকেও উন্নীত হতে হবে আমাকে, কারণ
ঈশ্বর ছাড়া সকলেই যে ধ্বংস হবে—
যেদিন আমার স্বর্গ পবিত্র আত্মার বলি দিব,
আমি হব তাই,
যা ছিল না কখনো কারও কল্পনা চিন্তায়—
আমার যেন বিলুপ্তি ঘটে, কারণ
অনস্তিত্ব ইন্দ্রিয়ে সুর তুলে আমি তাঁর কাছে ফিরব”

কবিতাটায় গভীর Mysticism। 


ও মৃত্যু নিয়ে এত কবিতা লিখত কেন? সৃষ্টিকর্তা ওকে কিছু জানিয়ে দিয়েছিল?

এমন অনন্য অসাধারণ ছেলেকে হত্যা – এমন ছেলে তো খুব কম জন্মায় – আমারই কেমন লাগে – ওর বাবামা, কাছের মানুষরা সহ্য করে কিভাবে?

 
 
ত্বকী