Outline of Development Plan for Bangladesh I: Economy, Education (বাংলাদেশের উন্নয়ন পরিকল্পনার রূপরেখা ১: অর্থনীতি, শিক্ষা)

 

Economic Development 

  1. Outline of Economic Development Plan for Bangladesh (বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন পরিকল্পনার রূপরেখা)
  2. Economic Ideology for Political Party in Bangladesh (বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলের জন্য অর্থনৈতিক মতাদর্শ)
  3. Reform in Financial Sector: Outline of Development Plans (ফাইনান্সিয়াল সিস্টেমে সংস্কার: উন্নয়ন পরিকল্পনার রূপরেখা)
  4. Entrepreneurship Development (উদ্যোক্তা উন্নয়ন)
  5. Economic Progress through Eradication of Corruption and Establishment of Rule of Law (দুর্নীতি দূরীকরণ এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে অর্থনৈতিক অগ্রগতি)

Reform in Education Sector

  1. Outline of Reform and Development plan in Education Sector (শিক্ষা খাতে সংস্কার ও উন্নয়ন পরিকল্পনার রূপরেখা)
  2. Education Development Plans (শিক্ষা উন্নয়ন পরিকল্পনা)
  3. Higher Education Reform & Development Plans I (উচ্চশিক্ষা সংস্কার ও উন্নয়ন পরিকল্পনা ১)
  4. Entrepreneurial Plans in Education (শিক্ষায় উদ্যোগের পরিকল্পনা)
  5. Introduction of Ranking System for Improvement of Universities (বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মান উন্নয়নে র‌্যাংকিং সিস্টেম প্রবর্তন)
  6. “Developed Bangladesh in light of Knowledge”: Enabling Excellence in Education through merit-based Competitions (“জ্ঞানের আলোয় উন্নত বাংলাদেশ”: মেধাভিত্তিক প্রতিযোগিতার মাধ্যমে জ্ঞানের উৎকর্ষ সাধন)
  7. The ‘Culture’ of Mathematical Olympiad in Bangladesh (বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াডের সংস্কৃতি)
  8. Let hateful crime of question paper leak be stopped (বন্ধ হোক দেশে প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘৃণ্য অপরাধ)
  9. Integrated Admission Test for Universities (বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা)
  10. ‘No VAT on Education’ Movement
  11. Dreams of a Research Institute (Research Institute নিয়ে স্বপ্ন)
  12. Knowledge Based Economy
  13. Higher Education Reform & Development Plans II
  14. Stimulating Research in Universities
  15. Gaining excellence in Education by establishing Center for Learning and Knowledge (জ্ঞান চর্চার কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে জ্ঞানের বিকাশ)

Lessons in Economics with Applications

  1. Economics 101: Price Control in Market through monitoring of Supply (ইকোনমিক্স ১০১: বাজারে সরবরাহ মনিটারিং এর মাধ্যমে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ)
  2. Economics 101: Inflation (ইকোনমিক্স ১০১: মূল্যস্ফীতি)
  3. Economics 101: Budget and Taxation

Development Missions

Development Missions

1. Increase Food Production to End Hunger

2. Ensure Access to Clean Water and Sanitation

3. Ensure Energy Adequacy

4. High Quality Education for All

5. Build Better Health Care System   [ Public / Private ]   

6. High Speed Internet for All    [ Develop Internet and Telecommunication Infrastructure ]

7. Develop Industries & Industrial Sectors    [ Software / ICT Industry, IoT / Smart Products Industry, Manufacturing Industry, Automotive Industry, Biotech Industry ]

8. Build Better Cities

9. Infrastructure and Services for Development 

10. Business for Enrichment of Human Lives    Business for Economic Development

11. Leverage ICT for Development

12. Innovate Technology to solve Development Problems

13. Improve Means of Transportation

14. Technology Development Platforms for Mass Empowerment    [ Maker Movement, Girls Who Code, DIY Bio ]

15. Democracy for Nations

16. Build Strong Public Institutions

17. Free Market Economy for Nations

18. Ensure Ease of Doing Business 

19. Entrepreneurship Development

20. Employment for All

21. Finance And Banking for All 

New Missions

New Missions

1. # Increase Food Production to End Hunger

2. # Ensure Access to Clean Water and Sanitation

3. # Ensure Energy Adequacy

4. # Build Better Cities

5. # Infrastructure for Development

6. # Business for Enrichment of Human Lives   # Business for Economic Development

7. # Leverage ICT for Development

8. # Improve Means of Transportation

9. # Technology Development Platforms for Mass Empowerment    # Maker Movement    # Girls Who Code    # DIY Bio

10. # Build Strong Public Institutions    [ # Democracy for Nations ]

Links

Entrepreneurship Development (উদ্যোক্তা উন্নয়ন)

 

Information Flow & Community

Free Market Economy সঠিক ভাবে কাজ করতে অবাধ তথ্য প্রবাহ (Information Flow) এবং সবার কাছে Market সম্পর্কে তথ্য (Information) পৌঁছানো নিশ্চিত করতে হয়। #FreeMarketEconomyForNations
Supply (যোগান) এবং Demand (চাহিদা) – উভয় দিকেই আমরা তথ্যের গুরুত্ব লক্ষ্য করি।
 
Demand side থেকে দেখলে:

ক্রেতার কাছে Market এর তথ্য থাকলে – ক্রেতা জানতে পারেন – একটি পণ্য – সবচেয়ে কম খরচে – কোথা থেকে কেনা যাবে। আবার ক্রেতাদের কাছে যখন Price বিষয়ে তথ্য থাকে – তখন বিক্রেতারাও দাম (Price) নিয়ে নিজেদের মাঝে প্রতিযোগিতা (Competition) করার মাধ্যমে Market এ সবচেয়ে সঠিক Price নির্ধারিত হয়।

আবার, Supply side থেকে দেখলে:

একজন নতুন Entrepreneur কিভাবে জানবে – কোন Market এ Business দাঁড় করানোর সুযোগ আছে? কোন পণ্যটির চাহিদা রয়েছে?
নবীন Entrepreneur র কাছে – সাফল্যের জন্য সবচেয়ে গুরুত্ব – তথ্য (Information)

এক্ষেত্রে আমরা যা করবো:
  • উদ্যোক্তাদের ব্যবসা সংক্রান্ত সব তথ্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে ওয়েবসাইট
  • উদ্যোক্তাদের কমিউনিটি গড়ে তোলা; পারস্পরিক যোগাযোগের মাধ্যমে শেখা এবং সম্মিলিতভাবে নতুন উদ্যোগ নেয়া।     

[Website

কি কি ক্ষেত্রে নতুন উদ্যোগের সুযোগ রয়েছে,

সম্ভাবনা কতটুকু, সমস্যা কি কি,  ….

অন্যরা এই ক্ষেত্রে ব্যবসা করতে গিয়ে কি কি সমস্যার মুখোমুখি হয়েছেন – প্রত্যেকে share করবেন …

–  বিস্তারিত তথ্য]



Links



Finance [অর্থ সংস্থান]

Finance (অর্থ সংস্থান) 

  • Banking Sector, 
  • Venture Capital Firm, Angel Investors’ Firm, Incubator Firm
  • Stock Market

Finance (অর্থ সংস্থান) Banking Sector

  • ব্যাংক ঋণ শর্ত সহজীকরণ; 
    • ব্যাংক থেকে bad loan র প্রবণতা (ঋণ খেলাপি, দুর্নীতি, রাজনৈতিক connection, ব্যবসাটির আদৌ সম্ভাবনা আছে কিনা – ইত্যাদি, ) দূর করা। আবার উপযুক্ত ক্ষেত্রে যাতে loan দেওয়া হয়। loan দেওয়ার মাপকাঠি ঠিক করে দেওয়া।
  • রাস্ট্রায়ত ব্যাঙ্কগুলোকে প্রাইভেটাইজেশনের (Privatization) উদ্যোগ নেওয়া
  • ব্যাংকিং সেক্টরে দুর্নীতি দূর করতে আমরা পদক্ষেপ নিয়েছি। ২০১৪ তে বেশ কয়েকজন দুর্নীতিবাজ ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেপ্তার হয়েছেন।
  • Bank Interest Rate কমানো হবে – ব্যবসার জন্য স্বল্প সুদে যাতে ঋণ নিতে পারেন।
    • ব্যবসার পরিবেশ উন্নত হলে –  Infrastructure উন্নত হলে, Energy Supply নিশ্চিত হলে – Bank গুলোও Entrepreneurs দের ঋণ দিতে আস্থা পাবে।  

#FinanceAndBankingForAll

 

সরকারি ব্যাংক – প্রাইভেটাইজেশান (Privatization) – খেলাপি ঋণ হবে না।

Sonali Bank revealed that one of its branches in Dhaka had granted a particular firm almost 27 billion taka in loans on false premises. All but 4 billion taka subsequently disappeared without trace.

Poor oversight and imprudent lending, often to well-connected firms or individuals, are a hallmark of state-owned banks everywhere. Bangladesh is no exception.

Bangladesh’s private banks, in turn, have helped boost garment-making, its main industry. Clients are lining up to secure loans for garment factories, power plants and steel mills, among other projects.”]

 

Finance (অর্থ সংস্থান)Venture Capital Firm, Angel Investors’ Firm, Incubator Firm

  • দেশে Venture Capital (ভেঞ্চার ক্যাপিটাল), Angel Investors (আঞ্জেল ইনভেস্টারস) – শিল্প গড়ে তোলা; 
  • ব্যবসায়ীদের invest করার সিদ্ধান্ত সহজ করতে Incubator Firm – অনুসরণে প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা – ব্যবসায়ীরা নিজেরা সরাসরি Entrepreneur দের সাথে কাজ করতে পারবেন।   

[Angel Investors – যারা Business Start-up এর একেবারে শুরুর দিকে বিনিয়োগ করেন।

শুরুতে Risk অনেক বেশি থাকে – Business Start-up – succeed হতেও পারে – নাও হতে পারে। কাজেই Risk minimization এর জন্য অনেকগুলো Firm এ অল্প অল্প করে invest করেন – যাতে অন্তত কয়েকটি লাভের মুখ দেখলেও হয়।

In contrast, Venture Capital Firms রা – Business Start-up একটু পরিণত হওয়ার পর বিনিয়োগ করেন। অল্প কয়েকটি Firm এ বিনিয়োগ করেন – কিন্তু investment এর পরিমাণ বেশি থাকে।] 

    

Finance (অর্থ সংস্থান) – Stock Market

স্টক মার্কেটে যেসব Firm  – IPO (Initial Public Offering) র মাধ্যমে নিজেদের stock offer করবেন – সেসব Corporation এর মূল্যমান নির্ধারণের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক মান অনুসরণ করা হবে।

আমাদের দেশে দেখা গেছে – স্টক মার্কেটে তালিকাভুক্ত এবং জনগণের investments এর অর্থ নিয়ে যাচ্ছে কিন্তু বাস্তবে Corporation টির অস্তিত্ব নেই।

স্টক মার্কেটের উপর আস্থা ফিরিয়ে আনা।

Links

 

 

Ease Of Starting Business; Administrative Complexity Elimination

ব্যবসার ক্ষেত্রে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা নিরসন; দ্রুততম সময়ে উদ্যোক্তারা যাতে ব্যবসা শুরু করতে পারেন সে লক্ষ্যে সমস্ত বাঁধাগুলো দূর করা;  

ওয়েবে ব্যবসার ফর্ম; লাইসেন্স ওয়েবে আবেদন করার সুযোগ

ফর্ম, লাইসেন্স – process করার কাজ – দ্রুততর করা – Administrative সংস্কার

চট্ট্রগ্রাম কাস্টমসে আগে পণ্য খালাসের জন্য – অনেকগুলো অপ্রয়োজনীয় টেবিল ঘুরে আসতে হত (মূল লক্ষ্য – ঘুষ, দুর্নীতি)। আমাদের উদ্যোগের ফলে চট্ট্রগ্রাম কাস্টমসে পণ্য খালাস প্রক্রিয়া সহজতর হয়েছে, ব্যবসায়ীদের খরচও কমে গেছে।


 

তরুণ উদ্যোক্তা গড়ে তোলা  

  • বিভিন্ন জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক উদ্যোক্তা – উদ্যোগ প্রতিযোগিতা 
  • Engineering / Basic & Applied Sciences এবং Economics / BBA / MBA background র ছাত্রছাত্রীদের একসাথে বসা এবং Knowledge and Ideas – exchange, share করার সুযোগ করে দেওয়া। লক্ষ্য : নতুন কোন Engineering Ventures.
  • তথ্যপ্রযুক্তিতে Entrepreneurship উৎসাহিত করতে Incubator প্রতিষ্ঠান, Hackathon প্রতিযোগিতা ইত্যাদি আধুনিক নানা উদ্যোগ চালু করা। একইভাবে Physical Digital Computing এ উৎসাহিত করতে Make-a-thon প্রতিযোগিতা উৎসাহিত করা।
   

Information & Communication Technology

  • সারাদেশে ব্রডব্যান্ড / হাইস্পিড ইন্টারনেট ছড়িয়ে দেওয়া।
  • কম্পিউটার যন্ত্রাংশ আমদানি শুল্ক এবং ইন্টারনেটের উপর শুল্ক কমানো।
  • মোবাইল ব্যাংকিং (M-Banking) বাংলাদেশে অনেকখানি বিকশিত (গ্রাহক ২ কোটির কাছাকাছি)। দেশের আরও বড় জনগোষ্ঠীকে মোবাইল ব্যাংকিং এর আওতায় আনা। এরা ব্যাংকিং সুবিধা যেমন পাবেন (টাকা দেশের বাড়িতে পৌঁছে দিতে আর গ্রামে যেতে হবে না – মোবাইল দিয়ে টাকা ট্রান্সফার করা যাবে) তেমনি মোবাইল দিয়ে কেনাবেচাও  (M-Commerce) করতে পারবেন। ফলে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বাড়বে। মোবাইল ব্যাংকিং এর Distinctive Advantage হল ব্যাংক এর জন্য Local অফিস সেট আপ-এর প্রয়োজন নেই – ফলে খরচ, Interest Rate অনেকখানি কমে আসে।
      • তথ্যপ্রযুক্তির একটা বড় সুবিধা – Business র “তথ্য ভিত্তিক কাজ” (Information-based Tasks) গুলো কম্পিউটার – ওয়েব ব্যবহার করে করতে পারলে Transportation (যাতায়াত), Physical অফিস সেট আপ (Office Setup) করা – থেকে শুরু করে অনেক ব্যয় বহুল কাজ সহজ হয়ে যায়। 
      • আবার কম্পিউটার ব্যবহার করে অনেক কাজ (যেমন – Accounting) Automate করা সম্ভব। বাংলাদেশের শিল্প কারখানাগুলোর জন্য Robot / Automation – ব্যাপক আকারে ব্যবহার করা শুরু করার জন্য আমি আমার Engineering & Management Consultancy Firm র মাধ্যমে উদ্যোগ নেবো।  

 

Information & Communication Technologies : Smart Government 

  • সরকারি অফিসগুলোতে দলিল – দস্তাবেজের “পাহাড়”কে ডিজিটাল তথ্যে রূপান্তর। দলিল – দস্তাবেজ থেকে খুঁজে পেতে বিপুল সময় খরচ হয়। তথ্য ডিজিটাইজ (Digitize) করলে কম্পিউটারে কয়েকটি বাটন টিপে-ই সেই তথ্য খুঁজে পাওয়া সম্ভব।
  • অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কাজ / ফর্মগুলো ইন্টারনেটের মাধ্যমে পূরণ করার সুযোগ দেওয়া হলে সরকারি অফিসের সামনে বিশাল ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হবে না!
  • পাসপোর্ট আবেদন, জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন – যতটা সম্ভব ইন্টারনেটে স্থানান্তর।

 

Government এর পক্ষে যা যা করা সম্ভব

  • Infrastructure development – 

“স্বল্প খরচে” এবং “নির্ধারিত সময়ে” পণ্য পরিবহণ – 

দেশের ভেতর: Dhaka – Chittagong 6-lane Highway; Dhaka – Sylhet Highway; Dhaka -Chittagong এবং Dhaka – Sylhet High Speed Rail; Modern Airline, etc. এবং

বিদেশে: Deep Sea Port; Airport.

[কল্পনা করুন, প্রতিদিন ১ থেকে দেড় ঘণ্টায় ঢাকা – চিটাগং বা ১ ঘন্টায় ঢাকা – সিলেট ট্রেন জার্নি করতে পারলে – কি কি করতেন!

ঢাকার যানজট নিয়ে চিন্তিত? বিরক্ত? ব্যবস্থা নেবো!]

  • Adequate Power, Gas Supply

[লোডশেডিং এ Entrepreneurship?!

গ্যাসের অভাবে Industry স্থাপন করতে doubtful?  ব্যবস্থা হবে!

আমাদের দেশের মাটির নিচে আর সমুদ্রে “এখনও অনাবিষ্কৃত” গ্যাসের মজুদ কিন্তু Surprisingly বেশি!]

 

  • Diplomatic Initiative – কূটনৈতিক উদ্যোগ – বিভিন্ন দেশের সাথে Free Trade Agreement / Deal করা যেসব দেশের সাথে চুক্তি আছে – উদ্যোক্তাদের জানানো। উদ্যোক্তাদের নতুন নতুন Market খুঁজে দিতে Task Force গঠন।

 

  • বাজেটে শুল্ক (Tax) নির্ধারণে শিল্প বিকাশের পথ সুগম করা। 
    • শিল্পের কাঁচামাল আমদানির উপর শুল্ক কমানো – যাতে দেশী শিল্প উদ্যোক্তারা স্বল্প দামে কাঁচামাল আমদানি করে দেশেই শিল্প পণ্য উৎপাদন করেন। 
    • আবার শিল্প উৎপাদিত Final Product আমদানির উপর শুল্ক বাড়ানো – যাতে ব্যবসায়ীরা Final Product আমদানি না করে বরং কাঁচামাল আমদানি করে দেশেই Product উৎপাদনে সচেষ্ট হন। 



Political Stability [রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা]
 

রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ধরে রাখা; 
হরতাল এবং অন্যান্য ধ্বংসাত্মক রাজনৈতিক কর্মসূচী পরিহার করা। 

রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডকে সকল অর্থনৈতিক প্রক্রিয়া থেকে আলাদা রাখা; রাজনীতিতে যা-ই ঘটুক না কেন – অর্থনীতি যেন তা দিয়ে প্রভাবিত না হয়।   

বাংলাদেশে হরতাল – জ্বালাও – পোড়াও এর সংস্কৃতি বন্ধ হয়েছে।

একদিনের হরতালে দেশে ২ হাজার কোটি টাকার উপর ক্ষতি হয়। হিসেব করলে ২-৩দিনের হরতালে দেশের জিডিপি থেকে ১ বিলিয়ন ডলার হারিয়ে যায়।
হরতাল সংস্কৃতি বন্ধের ফলে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে জিডিপিতে ঊর্ধ্বগতি আমরা দেখবো। 
 
২০১৪-১৫ অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ১০% ছাড়িয়ে যাবে।  
সহজভাবে বলতে গেলে ব্যাপারটা হল, আগের ১ বছরে দেশে মোট যে পরিমাণ পণ্য ও সেবা উৎপাদিত হয়েছে, আগামী ১ বছরে তার চেয়ে ১০% এর বেশি পণ্য ও সেবা উৎপাদন।
ধরি, বাংলাদেশের বর্তমান জিডিপি আনুমানিক ৩০০ বিলিয়ন ডলার। তাহলে, ১০% প্রবৃদ্ধির জন্য ২০১৪-১৫ অর্থবছরে জিডিপি ৩৩০ বিলিয়ন ডলার (৩০ বিলিয়ন ডলার বেশি) হতে হবে।

 

Personal Initiatives 

  • Engineering & Management Consulting Firm  

সবরকম সহায়তা: Large Scale Engineering থেকে বিভিন্ন Engineering পণ্য; ব্যবসা সংক্রান্ত Consulting.

[আমি আমার Team কে Train up করবো – Team সব Business-কে assist করবে – Consulting Services; Engineering Products তৈরি করে দেবে।]

 



 



 

References

 
Research & Engineering; Knowledge Based Economy
Computer Science & ICT

Education System

 

Large Scale Engineering

 
 
High Speed Rail (Someday will have “Made in Bangladesh” 
marked on it”)
 
High Speed Rail
Satellite (Someday will have “Made in Bangladesh” 
marked on it)
Satellite

 

 

  

Aircraft (Soon to be : “Made in Bangladesh”)
Aircraft Manufacturing

 

Reform in Financial Sector: Outline of Development Plans (ফাইনান্সিয়াল সিস্টেমে সংস্কার: উন্নয়ন পরিকল্পনার রূপরেখা)

Area of Expertise: # Finance And Banking

ফাইনান্সিয়াল সিস্টেম (Financial System) এ সংস্কার

 
দেশের পুরো ফাইনান্সিয়াল সিস্টেমকে ঢেলে সাজানো হবে। 
 
ফাইনান্সিয়াল সিস্টেম (Financial System) বলতে কিছু শর্তের ভিত্তিতে এবং নিয়মকানুন মেনে অর্থ (Money) এক পক্ষ থেকে অপর পক্ষে হস্তান্তর করে এমন সব সিস্টেম। 
ফাইনান্সিয়াল সিস্টেমের মাঝে রয়েছে 
  • ব্যাংক, 
  • ক্ষুদ্রঋণ (Micro-credit) প্রতিষ্ঠান,  
  • স্টক মার্কেট, 
  • ভেঞ্চার ক্যাপিটাল শিল্প,
  • ইন্টারন্যাশনাল এক্সচেঞ্জ (ফরেইন রেমিটেন্স ম্যানেজমেন্ট), 
  • ইনস্যুরেন্স।   
শেয়ার মার্কেটে সংস্কার: 
 
এক শেয়ার বাজারেই ২০১১ সালে বিলিয়ন ডলারের উপর অর্থ কারসাজির মাধ্যমে সরানো হয়েছে।
শেয়ার বাজারেই ২০১১ সালের scam এর পুরোটা ছিল পূর্ব পরিকল্পিত। 
প্রথমে সবাইকে শেয়ার বাজারে বিনিয়োগে লাভের লোভ দেখিয়ে বিনিয়োগ করতে উৎসাহিত করা হয়। (ঠিক যেভাবে এমএলএম কোম্পানিগুলো লাভের লোভ দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।)
বক, বিভিন্ন পেশার মানুষ লাভের আশায় শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করেন। অনেকেই বিনিয়োগ করতে গ্রামে নিজেদের সহায় সম্পত্তি বিক্রি করেন। 
তারপর কারসাজি করে কোটি টাকা সরিয়ে নেওয়া হয়। 
 
আমরা বিদেশে পাচার করা কালো টাকা ফিরিয়ে আনবো। 
 
নাগরিক শক্তি ক্ষমতায় গিয়ে স্টক মার্কেটে কোম্পানির মূল্যমান নির্ধারণ করার প্রক্রিয়াকে স্বচ্ছ এবং মানসম্পন্ন করবে। (আমাদের দেশে কিছু কোম্পানির বাস্তবে অস্তিত্ব নেই, কিন্তু শেয়ার মার্কেটে শেয়ার বিক্রি করে।)
 
ব্যাংকিং সেক্টরে সংস্কার: 
 
রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোতে স্বচ্ছতা আনতে আমরা কাজ শুরু করেছি। 
 
দেশের রাস্ট্রায়ত ব্যাংকগুলো চরম অব্যবস্থাপনা এবং সীমাহীন দুর্নীতিতে নিমজ্জিত। 
রাজনীতিবিদরা এবং রাজনৈতিক পরিচয় ব্যবহারকারীরা দেশের রাস্ট্রায়ত ব্যাংকগুলো থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট-দুর্নীতি-ঋণ খেলাপি করেছেন। 
 
দেশের ব্যাংকিং সেক্টরে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা হবে। 
 
রাস্ট্রায়ত ব্যাংকগুলোতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা, দুর্নীতিবাজদের বিচারের মুখোমুখি করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।
“১৪০ কোটি টাকা আত্নসাতের গুরুতর অভিযোগে মামলা হয়েছে।”
 
 
বিশিষ্ট ব্যক্তিদের প্রস্তাব: 
– ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ: অর্থনীতিবিদ; সাবেক গভর্নর, বাংলাদেশ ব্যাংক 
– খোন্দকার ইব্রাহীম খালেদঃ ব্যাংকার; সাবেক ডেপুটি গভর্নর, বাংলাদেশ ব্যাংক 
 
নাগরিক শক্তি ক্ষমতায় গিয়ে রাস্ট্রায়ত ব্যাংকগুলোকে প্রাইভেটাইজেশনের (privatization) প্রক্রিয়া শুরু করবে। 
 
 
হুন্ডির মাধ্যমে প্রবাসীদের অর্থ দেশে পাঠানোর প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে অবস্থান: 
হুন্ডির মাধ্যমে প্রবাসীদের অর্থ দেশে পাঠানোর প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে আমরা কাজ শুরু করেছি। পুরোপুরি কার্যকর করতে পারলে ফরেইন রেমিটেন্স (Foreign Remittance) প্রায় দ্বিগুণ করা সম্ভব।

হুন্ডি ব্যবসায়ীরা মাদকসহ নানা অপকর্মে তাদের অর্থ ব্যবহার করেন। 

 
হরতালের বিপক্ষে দৃঢ় অবস্থান: 
দেশে আমরা কোন রাজনৈতিক দলকে জোর করে হরতাল পালন করতে দেবো না।
 
 
 
  • ফরেইন রেমিটেন্স এবং কালো টাকা – বিলিয়ন ডলার দেশে ফিরে আসবে।
  • ব্যবসার পথে আমলাতান্ত্রিক জটিলতাগুলো দূর করবো।
    দেশের ব্যাংকগুলোতে যদি বিলিয়ন ডলার থাকে আর ব্যবসা করার প্রক্রিয়া যদি সহজ হয়, তাহলে দেশে বাণিজ্য এবং শিল্পের একটা নবজাগরণ ঘটবে। 
 
 
সবকিছু পরিকল্পনামত এগুলে বাংলাদেশ শুধু 
  • “দুর্নীতিমুক্ত”, 
  • “মাদকমুক্ত”, 
  • “ফরমালিনমুক্ত” এবং 
  • “সন্ত্রাসমুক্ত”ই হবে না, 

২০১৪-১৫ অর্থবছরে রেকর্ড পরিমাণ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে। 

 
 
 বাংলাদেশে হরতাল – জ্বালাও – পোড়াও এর সংস্কৃতি বন্ধ হয়েছে।
একদিনের হরতালে দেশে ২ হাজার কোটি টাকার উপর ক্ষতি হয়। 
এভাবে হিসেব করলে ২-৩দিনের হরতালে দেশের জিডিপি থেকে ১ বিলিয়ন ডলার হারিয়ে যায়।
হরতাল সংস্কৃতি বন্ধের ফলে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে জিডিপিতে ঊর্ধ্বগতি আমরা দেখবো। 
 
২০১৪-১৫ অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ১০% ছাড়িয়ে যাবে।  
সহজভাবে বলতে গেলে ব্যাপারটা হল, আগের ১ বছরে দেশে মোট যে পরিমাণ পণ্য ও সেবা উৎপাদিত হয়েছে, আগামী ১ বছরে তার চেয়ে ১০% এর বেশি পণ্য ও সেবা উৎপাদন।
 ধরি, বাংলাদেশের বর্তমান জিডিপি আনুমানিক ১৫০ বিলিয়ন ডলার। তাহলে, ১০% প্রবৃদ্ধির জন্য ২০১৪-১৫ অর্থবছরে জিডিপি ১৬৫ বিলিয়ন ডলার (১৫ বিলিয়ন ডলার বেশি) হতে হবে।  
 
১৫ বিলিয়ন ডলারের উপর জিডিপি প্রবৃদ্ধি কিন্তু খুবই সম্ভব: 
 
  • আগের অর্থবছরের মত দিনের পর দিন হরতাল নেই। পোশাক শিল্পে রপ্তানি অনেকখানি বাড়বে। ব্যবসা ভালো চলবে। 
  • অন্যায় – অপরাধ – মাদকের প্রকোপ নেই। জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে আগের মত অনিশ্চয়তা নেই। 
  • দুর্নীতি অনেকখানি নিয়ন্ত্রণে। 
  • স্থানীয় সরকারগুলো তাদের দায়িত্ব পালন করবে। 
  • ব্যবসা – উদ্যোগের পথে সমস্যাগুলো দূর করা হবে। আমলাতান্ত্রিক জটিলতা (যেমন নিবন্ধন ইত্যাদি) দূর করা হবে। 
  • হুন্ডির মাধ্যমে অর্থ পাঠানো বন্ধ হলে ফরেইন রেমিটেন্স অনেকখানি বাড়বে – বেশ কয়েক বিলিয়ন ডলার। 
  • নাগরিক শক্তি ক্ষমতায় গিয়ে স্টক মার্কেটে কোম্পানির মূল্যমান নির্ধারণ করার প্রক্রিয়াকে স্বচ্ছ এবং মানসম্পন্ন করবে। (আমাদের দেশে কিছু কোম্পানির বাস্তবে অস্তিত্ব নেই, কিন্তু শেয়ার মার্কেটে শেয়ার বিক্রি করে।)
  • ব্যাংক, স্টক মার্কেট এ শৃঙ্খলা আসলে শিল্প মালিক এবং উদ্যোক্তাদের নতুন ব্যবসা শুরু করতে অর্থের যোগান পেতে সমস্যা হবে না।
  • আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ হবে – বাইরে পাচার হওয়া কালো টাকা ফিরিয়ে আনা। আমরা পাচার হওয়া অনেক বিলিয়ন ডলার ফিরিয়ে এনে প্রকৃত মালিক জনগণের হাতে ফিরিয়ে দেবো।  
 
 
সবাই দায়িত্ব ভাগ করে নিলে ১০% এর অধিক জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্যটা সহজ হয়ে যায়। 
  • গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রির এক্সপোর্ট গত ১ বছরে ২০ বিলিয়ন ডলার হলে, আগামী ১ বছরে ২২ বিলিয়ন ডলার এক্সপোর্ট করতে হবে।    
  • আবার, কোন মাঝারি আকারের ব্যবসা গত ১ বছরে ১০ লক্ষ টাকার পণ্য ও সেবা উৎপাদন করলে, আগামী ১ বছরে ১১ লক্ষ টাকার পণ্য ও সেবা উৎপাদন করতে হবে। 
  • এভাবে আমরা যে যেখানেই আছি না কেন, প্রত্যেকে যদি পণ্য বা সেবায় নিজের contribution আগের ১ বছরের তুলনায় ১০% বাড়াতে পারি তবে আমরা ১০% জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে পারবো। 
 
বাংলাদেশের প্রত্যেক নাগরিকের লক্ষ্য হোক আগের বছরের তুলনায় ১০% বেশি উন্নতি। 
 
[ছাত্রছাত্রীরাও এই প্রক্রিয়ার সাথে নিজেদের যুক্ত করতে পারে। কোন ছাত্র বা ছাত্রী আগের ১ বছর প্রতিদিন গড়ে ৬ ঘন্টা পড়াশোনা করলে আগামী ১ বছর প্রতিদিন গড়ে ৬ ঘন্টা ৩৬ মিনিট পড়াশোনা করতে হবে এবং প্রত্যেক বিষয়ে ১০% বেশি নাম্বার পেতে হবে। পারবে না?]  
 
উল্লেখ্য, গত ১০ বছরে নিয়মিতভাবে আমরা আগের বছরের তুলনায় ৬ – ৬.৭% জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছি। 
অন্যভাবে বলতে গেলে, গত ১০ বছরে – প্রতিবছর আগের বছরের তুলনায় দেশে উৎপাদিত মোট পণ্য ও সেবার পরিমাণ ৬ – ৬.৭% বৃদ্ধি পেয়েছে।
 


সবকিছু পরিকল্পনামত এগুলে আমরা খুব দ্রুত মাথাপিছু আয়ের দিক দিয়ে প্রতিবেশী ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা আর ভিয়েতনামকে ছাড়িয়ে যাব! 
বাংলাদেশ কয়েক বছরের মাঝে Emerging Economyগুলোর মাঝে সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল এবং শক্তিশালী হিসেবে আবির্ভূত হবে।   
 
 
স্বপ্নের বাংলাদেশের দিকে আমাদের দৃষ্টি নিবদ্ধিত।
 


Progression

“All major economic indicators of Bangladesh have been showing a sign of improvement for the past several months, according to ADB’s update report launched yesterday at its Dhaka office.”






 

Entrepreneurship (উদ্যোক্তা) Development

 
 ১.উদ্যোক্তাদের ব্যবসা সংক্রান্ত সব তথ্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে ওয়েবসাইট 
 
 ২.উদ্যোক্তাদের কমিউনিটি গড়ে তোলা; পারস্পরিক যোগাযোগের মাধ্যমে শেখা এবং সম্মিলিতভাবে নতুন উদ্যোগ নেয়া;  
 
 ৩.দেশে ভেঞ্চার ক্যাপিটাল শিল্প গড়ে তোলা 
 
 ৪.ব্যবসার ক্ষেত্রে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা নিরসন; দ্রুততম সময়ে উদ্যোক্তারা যাতে ব্যবসা শুরু করতে পারেন সে লক্ষ্যে সমস্ত বাঁধাগুলো দূর করা;  
 
 ৫.ব্যাংক ঋণ শর্ত সহজীকরণ; রাস্ট্রায়ত ব্যাঙ্কগুলোকে প্রাইভেটাইজেশনের উদ্যোগ নেওয়া 
 
 ৬. তথ্যপ্রযুক্তিতে Entrepreneurship উৎসাহিত করতে Incubator প্রতিষ্ঠান, Hackathon প্রতিযোগিতা ইত্যাদি আধুনিক নানা উদ্যোগ চালু করা 
 
 
 
রেফরেন্স: