Tahsin’s Reading List: Applied Mathematics for the General Reader

Applied Mathematics

Network Science

Mathematical Biology

Mathematics in Sports & Athletics

Crime & Forensic Science

Tahsin’s Reading List: Mathematical Problem Solving, Combinatorics

Mathematical Problem Solving

Combinatorics

The ‘Culture’ of Mathematical Olympiad in Bangladesh (বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াডের সংস্কৃতি)

“মধুর সমস্যায় পড়েছেন বৃষ্টি শিকদার ও সৌরভ দাশ – Harvard University, Cambridge University, Massachusetts Institute of Technology (MIT), California Institute of Technology (Caltech), Stanford University, Duke University সহ বিশ্বের নামীদামি ১৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পেয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন সবাইকে। কিন্তু বেছে নিতে পারবেন মাত্র একটি। কোনটি বেছে নেবেন এই দুই মেধাবী? [12]”


এটা কিভাবে ঘটেছে?

 
ঘটেছে বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াড সংস্কৃতি সূচনার মাধ্যমে। 
 
সেই গল্পই বলছি আজকে।
 
শুনতে থাকুন! 
 

বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াডের সংস্কৃতির সূচনার পর বেশকিছু পরিবর্তন আমরা লক্ষ্য করছি।

আমরা লক্ষ্য করছি, অনেকগুলো ছেলেমেয়ে প্রতিদিনের একটা অংশ গভীর আগ্রহ নিয়ে গাণিতিক সমস্যা সমাধানে  ব্যয় করে।
Exercise vs Problem Solving

স্কুল কলেজে আমরা যে গণিত করি – ওটা হল Exercise করা।
Physical Exercise করার সময় আমরা যেমন একই নিয়মে অনুশীলন করে যাই (হোক অনুশীলনটা শারীরিক) – স্কুলে কলেজে আমরা গণিত করার সময় অনেকটা ওরকমই করি – কিছু নির্দিষ্ট ধাপ মেনে একই নিয়মে অনুশীলন করে যাই। 
ধর, তুমি দুটো সংখ্যাকে গুণের নিয়ম (Rules) শিখে নিলে – প্রথমে সবচেয়ে ডানের অঙ্ক দুটোকে গুণ, তারপর হাতে রাখলাম, তারপর …।
এরপর তুমি যখন বই-এ দেওয়া Exercises থেকে দুটো সংখ্যাকে নিয়ম মেনে গুণ কর – তখন Exercise (অনুশীলন) কর (ঐ যে বলছিলাম – একই নিয়মে অনুশীলন)।
যারা Computer Science পড়েছ তারা জানো – এভাবে নির্দিষ্ট কিছু ধাপ (Step by step) মেনে সমস্যা সমাধানকে Computer Science এর পরিভাষায় বলে Algorithm.
অলিম্পিয়াডের সমস্যাগুলোর (Mathematical Problems) মজার ব্যাপারটা কি জানো?
গণিত অলিম্পিয়াডের সমস্যাগুলো সমাধানে – এই যে কোন ধাপের পর কোন ধাপ মেনে সমস্যা সমাধান হবে – ওটা নিজেকে ভেবে বের করতে হয়। অন্যকথায়, গণিত সৃষ্টি করতে হয়। 
Computer Science এর পরিভাষায় বলা যায় Algorithm টা নিজেকে দাঁড় করাতে হয়। 
ব্যাপারটা এভাবে ভেবে দেখো –
ধর, দুটো সংখ্যাকে কিভাবে গুণ বা একটা সংখ্যা দিয়ে অপর একটা সংখ্যাকে কিভাবে ভাগ করতে হবে – সেই নিয়ম তোমাকে কেউ শিখিয়ে দেয় নি। নিজেকে ভেবে বের করতে হবে – কিভাবে দুটো সংখ্যাকে গুণ করা যায় বা একটা সংখ্যা দিয়ে অপর একটা সংখ্যাকে ভাগ করা যায়।
গণিত অলিম্পিয়াডে এমন সব সমস্যা সমাধান করতে হয় – যে সমস্যা সমাধানের উপায় বা নিয়ম তোমাকে কেউ শিখিয়ে দেয় নি – তোমাকে ভেবে বের করতে হবে! অর্থাৎ গণিত সৃষ্টি করতে হবে!   

আমরা বলি, স্কুল কলেজে তোমরা Exercise কর, আর গণিত অলিম্পিয়াডে আমরা “Problem Solving” করি!
কাজেই যারা এখনও Problem Solving কর না, আশা করছি তোমরা দ্রুত আমাদের দলে যোগ দেবে!

যারা Problem Solving করে তাদের অনেক ভাবতে হয়। ভাবতে গিয়ে তাদের “নিউরনে অনুরনন” হয়! তারা অনেক ভালভাবে চিন্তা করতে, বিশ্লেষণ করতে শেখে। 
গণিত অলিম্পিয়াড সূচনার পর একটা প্রজন্ম গড়ে উঠছে যাদের গড় IQ আগের প্রজন্মগুলোর তুলনায় বেশি। নতুন প্রজন্মের এই ছেলেমেয়েরা অনেক ভালভাবে চিন্তা করতে পারে। আমাদের দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দৈনিক এ নিজের ছবি দেখা, বিশ্ব প্রতিযোগিতায় নিজ দেশকে represent করা – অনেক বড় inspiration। 

এই মেধাবী ছেলেমেয়েগুলো যখন দেশ ও সমাজের দায়িত্ব নেবে, তখন আমরা নতুন একটা দেশ গড়ে তুলবো।
সেই লক্ষ্যে প্রস্তুতির জন্য আমাদের কিশোর তরুণ গণিতবিদদের কিছু কাজ করতে হবে:
গাণিতিক সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে চিন্তা করার, বিশ্লেষণ করার যে ক্ষমতা বিকশিত হয়েছে, সেই ক্ষমতাকে আশেপাশের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে প্রয়োগ করা শুরু করতে হবে। 
বই পড়ে যা-ই শিখছ – তাকে বাস্তব জীবনে কিভাবে প্রয়োগ করা যায় – ভাবতে হবে। 
আমার লেখা পড়লে দেখবে – জ্ঞান (Knowledge) কে আমি চারপাশের জগতে, জীবনের প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে প্রয়োগ করি। জীবনে চলি – জ্ঞানের উপর ভিত্তি করে – Mathematics, Engineering, Economics, এমনকি Politics! Knowledge based Life – বলতে পারো! 
আর দেরি না – জ্ঞান ভিত্তিক জীবন (Knowledge based Life) শুরু হোক আজ থেকে!
 
ফিরে আসি গণিত অলিম্পিয়াডে।
Dreams & Aspirations
Mathematical Olympiad for Primary School students!
আমরা লক্ষ্য করেছি, গণিত অলিম্পিয়াডের অনুষ্ঠানগুলোতে অনেক ভাল ভাল কথা হয়। আলোকিত মানুষ হওয়ার, দেশকে ভালবাসার অনুপ্রেরণা পায় ছেলেমেয়েরা। ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা দেশের গুণী মানুষদের কাছ থেকে দেখার সুযোগ পায়, প্রশ্ন করতে পারে, কথা বলতে পারে এবং এমনকি চাইলে অটোগ্রাফও নিতে পারে!


দুটা চমৎকার ব্যাপারের একটা হল

  • “গণিত শেখো, স্বপ্ন দেখো” থিম – অনেকগুলো ছেলেমেয়ে নিজের জীবন নিয়ে দেশ নিয়ে বড় বড় স্বপ্ন দেখছে এবং তার চেয়েও বড় কথা স্বপ্নগুলোকে বিশ্বাস করছে [14]। বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী দেশের শিশুকিশোর গণিতবিদদের কাছে যে ৩টি স্বপ্নের কথা বলেছিলেন তাদের মাঝে ছিল ২০২২ সালের মধ্যে একজন বাংলাদেশী গনিতবিদের ফিল্ডস মেডল জয় এবং ২০৩০ সালের মধ্যে একজন বাংলাদেশী বিজ্ঞানীর নোবেল পুরষ্কার জয়। আমাদের ক্ষুদে গণিতবিদরাও এই স্বপ্নগুলো বাস্তবায়নে নিজেদের তৈরি করছে। 
  • আরেকটা হল একেবারে ক্লাস থ্রি – ফোরের ছেলেমেয়েরা ড. জাফর ইকবালের ভাষায় “পেন্সিল কামড়ে” অঙ্ক করতে আসে!

 

Admission in World class Universities

আমরা লক্ষ্য করেছি, বাংলা মাধ্যমের বেশ কিছু ছেলেমেয়ে বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আন্ডারগ্রাজুয়েট লেভেল এ পড়ার সুযোগ পেয়েছে। মুন পড়ছে Harvard University তে [1], নাজিয়া MIT তে [2] (তা নাহলে “MIghTy” শব্দটা এভাবে লেখা আমরা কোত্থেকে শিখতাম!), ইশফাক Stanford University তে [3], তানভির Caltech এ [4] (আমাদের শ্রদ্ধেয় প্রফেসর ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল এই বিশ্ববিদ্যালয়ে Post-Doctoral Researcher হিসেবে কর্মরত ছিলেন) [5], সামিন Cambridge University তে [6]।

আগে অ্যামেরিকা, ইউরোপ, এশিয়া বা অস্ট্রেলিয়ার গ্রাজুয়েট স্কুলগুলোতে আমরা এমএস বা পিএইচডি করতে যেতাম। ইংরেজি মাধ্যমের অবস্থাসম্পন্ন ছেলেমেয়েরা পড়তে পারত আন্ডারগ্রাজুয়েট লেভেলে। কিন্তু “বাংলা মাধ্যম” থেকে “স্কলারশিপ নিয়ে” “আন্ডার গ্রাজুয়েট” লেভেলে “বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে” পড়তে যাওয়াটা নতুন!

“বাংলা মাধ্যম” থেকে “স্কলারশিপ নিয়ে” “আন্ডার গ্রাজুয়েট” লেভেলে “বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে” পড়ার পথ দেখানোর কৃতিত্বের একক দাবিদার বাংলাদেশ গণিত দলের কোচ ড. মাহবুব মজুমদার  [7]; যিনি MIT থেকে Electrical Engineering এ আন্ডারগ্রাড, Stanford University থেকে Civil Engineering এ মাস্টার্স এবং Cambridge University থেকে Theoretical Physics এ PhD করে Imperial College এ [8] Post Doctoral করছিলেন। ২০০৫ সালে বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের সাথে সম্পৃক্ত হন এবং স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে দেশে থেকে যান। 

১৯০৫ এ আইনস্টাইনের “Miracle Year” [10] স্মরণে ২০০৫ সালের বাংলাদেশ জাতীয় গণিত অলিম্পিয়াডে আইনস্টাইন এবং পদার্থবিজ্ঞানের উপর একটা প্রশ্ন উত্তর পর্ব ছিল। সেখানে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিয়েছিলাম। তাই গণিত ক্যাম্পে ড. মাহবুব মজুমদার আগ্রহের সাথে পদার্থবিজ্ঞান নিয়ে আলোচনা করতেন। মেক্সিকোয় যাওয়ার আগে প্রেস কনফারেন্সে তিনি স্ট্রিং থিউরির [11] একটা পেপার নিয়ে হাজির!   

Success at IMO
আরেকটা ব্যাপার লক্ষ্য করার মত। আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে আমাদের সাফল্যের মাত্রা দ্রুত বাড়ছে [15] [16]। আমাদের কিশোর – তরুণ গণিতবিদরা ২০০৬ সালে প্রথমবারের মত অনারেবাল মেনশান, ২০০৯ সালে প্রথমবারের মত ব্রোঞ্জ মেডেল, ২০১২ সালে প্রথমবারের মত সিলভার মেডেল জয় করে এনেছে। আমরা আশা করছি, এই ধারা অব্যাহত রেখে বাংলাদেশ গণিত দল ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াড থেকে গোল্ড মেডেল নিয়ে ফিরবে! গোল্ড মেডেল জয়ী সেই গণিতবিদ হতে পারো তুমিই!

Participation in APMO

আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের পাশাপাশি আমাদের ক্ষুদে গণিতবিদরা এশিয়ান-প্যাসিফিক ম্যাথমেটিক্যাল অলিম্পিয়াডে (এপিএমও) অংশগ্রহণ করছে এবং পদক জয় করে আনছে [16]।

Books on Mathematics, Math Olympiad for University students and the start of a new ‘Culture’

আমি শিরোনামে “সংস্কৃতি” শব্দটির উল্লেখ করেছি। এর সবচেয়ে বড় কারণ অবশ্যই বাংলাদেশের ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের গণিত তথা মেধার চর্চা। কিন্তু এই মেধা চর্চার ঢেউ এসে লেগেছে আমাদের সংস্কৃতির নানা অঙ্গনে, নানা অংশে। গণিত চর্চার জন্য প্রকাশিত হচ্ছে বই [13]। একুশের বই মেলায় গণিতের বইয়ের স্টলে ভিড় জমাচ্ছে ছেলেমেয়েরা। বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ে নিয়মিত গণিত অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হচ্ছে [17]।

Science Olympiads

গণিত অলিম্পিয়াড সূচনা এবং সাফল্যের পর বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ে অলিম্পিয়াড শুরু হয়েছে।

  • পদার্থবিজ্ঞান অলিম্পিয়াড (Physics Olympiad)
  • রসায়ন অলিম্পিয়াড (Chemistry Olympiad)
  • জীববিজ্ঞান অলিম্পিয়াড (Biology Olympiad)
  • প্রাণরসায়ন অলিম্পিয়াড (Biochemistry Olympiad)
  • ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড (Informatics Olympiad) 
    • কম্পিউটার প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। আমাদের স্কুল কলেজের ছেলেমেয়েরা এখন আন্তর্জাতিক প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় মেডেল জয় করে আনছে! ভাবা যায়!  


Volunteers
গণিত অলিম্পিয়াডের এই সংস্কৃতি সম্ভব হয়েছে কিছু তরুণ – তরুণীর স্বেচ্ছা কর্মোদ্যোগে। আমরা তাদের “মুভারস” (MOVERS – Math Olympiad Volunteers) বলে জানি। একটা শুভ উদ্যোগে দেশের তরুণ তরুণীদের উৎসাহী অংশগ্রহণ আমাদের প্রাণশক্তিতে ভরপুর তরুণ প্রজন্মকে সংজ্ঞায়িত করে।


নাগরিক শক্তি গণিত অলিম্পিয়াডের এই সংস্কৃতিকে দেশে আরও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেবে।



– ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী: তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা; উপাচার্য, ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক; সভাপতি, বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি।

তরুণ প্রজন্ম এখন নেতৃত্ব নিতে সক্ষম
– ডঃ মুহম্মদ জাফর ইকবাল, বিভাগীয় প্রধান, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

ভর্তি, মান ও দক্ষ জনশক্তি
– ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ: অধ্যাপক, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ও ফেলো, বাংলাদেশ একাডেমি অব সায়েন্সেস।



তোমাদের জন্য লেখা





আরও কিছু লেখা




বাংলাদেশে বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড




রেফরেন্স

  1. Harvard University
  2. MIT
  3. Stanford University
  4. California Institute Of Technology
  5. Dr. Muhammed Zafar Iqbal
  6. Cambridge University
  7. Dr. Mahbub Majumdar
  8. Imperial College
  9. A painful funny story
  10. Einstein’s Miracle Year
  11. String Theory
  12. এমআইটির পথে…
  13. গণিতের জাদু বইয়ের মোড়ক উন্মোচন
  14. গণিত শেখো স্বপ্ন দেখো: জাতীয় গণিত উৎসব বিশেষ সংখ্যা: ১৪ ও ১৫ ফেব্রুয়ারি, ঢাকা
  15. আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াড: এবার তিনটি ব্রোঞ্জ পেল বাংলাদেশ
  16. এপিএমওতে বাংলাদেশের দুটি ব্রোঞ্জ পদক
  17. খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক গণিত অলিম্পিয়াড

Latest From Science & Engineering, Medicine & Innovation [08.13.14]

Mathematics

An Iranian mathematician is the first woman ever to receive a Fields Medal, often considered to be mathematics’ equivalent of the Nobel Prize.
The recipient, Maryam Mirzakhani, a professor at Stanford, was one of four winners honored on Wednesday at the International Congress of Mathematicians in Seoul, South Korea.
The Fields Medal is given every four years, and several can be awarded at once. The other recipients this year are Artur Avila of the National Institute of Pure and Applied Mathematics in Brazil and the National Center for Scientific Research in France; Manjul Bhargava of Princeton University; and Martin Hairer of the University of Warwick in England.
Much of the research by Dr. Mirzakhani, who was born in Tehran in 1977, has involved the behavior of dynamical systems. There are no exact mathematical solutions for many dynamical systems, even simple ones.
“What Maryam discovered is that in another regime, the dynamical orbits are tightly constrained to follow algebraic laws,” said Curtis T. McMullen, a professor at Harvard who was Dr. Mirzakhani’s doctoral adviser. “These dynamical systems describe surfaces with many handles, like pretzels, whose shape is evolving over time by twisting and stretching in a precise way. They are related to billiards on tables that are not rectangular but still polygonal, like the regular octagon.”
  • Congratulations to American – Iranian Mathematician Maryam Mirzakhani! When I used to look at the ranklist of International Mathematical Olympiad (IMO), I found that the only Muslim-majority country that made it to the top was Iran. Maryam Mirzakhani was one of the young mathematicians who represented Iran in International Mathematical Olympiad and “At the 1995 International Mathematical Olympiad she was the first Iranian student to finish with a perfect score.” [1]
  • Fields Medal winner Maryam Mirzakhani’s work reminds me of an area (complex systems) that I am currently thinking a lot about. Just as you can’t solve dynamical systems exactly, but can discover algebraic laws that constrain a particular variety of dynamical system, in complex systems research, you can’t model and exactly predict a complex system consisting of lots and lots of interacting agents, but there are emergent properties (and regularities) that you discover when you view from a different perspective. So maybe in near future we will discover an algebra for describing emergent properties in complex systems, like cells (consisting of interacting molecules) or brains (consisting of interacting neurons), or ecology (consisting of interacting organisms).


Science, Technology and Policy


Neuroscience

Physical Digital Computing

Translational Medicine And Bioengineering

References

  1. Maryam Mirzakhani

Notes On Mathematics [Areas Of Focus]

  • Algebraic Numbers
  • Number Theory
    • Analytic Number Theory
    • Computational Number Theory
    • Algebraic Number Theory
  • Algebraic Geometry
  • Arithmetic Geometry
  • Algebraic Topology
  • Differential Topology
  • Moduli Spaces
  • Representation Theory  
  • Geometric and Combinatorial Group Theory
  • Harmonic Analysis
    • An operator is a function that takes a function and returns a transformed function.
  • Partial Differential Equations
  • General Relativity & The Einstein Equations
  • Dynamics
  • Operator Algebra
  • Mirror Symmetry
  • Vertex Operator Algebra
  • Enumerative & Algebraic Combinatorics
  • Extremal & Probabilistic Combinatorics
  • Computational Complexity
  • Numerical Analysis
  • Set Theory
  • Logic & Model Theory
  • Stochastic Processes
  • Probabilistic Models of critical phenomena
  • High Dimensional Geometry & its probabilistic Analogues
 
 
References

বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াডের সংস্কৃতি

বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াডের সংস্কৃতির সূচনার পর বেশকিছু ব্যাপার আমরা লক্ষ্য করছি।

আমরা লক্ষ্য করছি, অনেকগুলো ছেলেমেয়ে গভীর আগ্রহ নিয়ে গাণিতিক সমস্যা সমাধানে প্রতিদিনের একটা বড় অংশ ব্যয় করে।

স্কুল কলেজে আমরা গণিত বলতে exercise করি – কিছু নির্দিষ্ট ধাপ বা কম্পিউটার বিজ্ঞানের ভাষায় অ্যালগরিদম মেনে চলি মাত্র। কিন্তু গণিত অলিম্পিয়াডের সমস্যাগুলো সমাধানে ধাপগুলো বা অ্যালগরিদমটা নিজেকে দাঁড় করাতে হয়। অন্যকথায়, গণিত সৃষ্টি করতে হয়।

একটা উদাহরণ দেই।

দুটা সংখ্যাকে গুণ করতে আমরা না বুঝেই কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চলি – প্রথমে দুটি সংখ্যার সবচেয়ে ডানের অঙ্ক দুটিকে গুণ করি, তারপর হাতে রাখি ইত্যাদি।

কিন্তু গণিত অলিম্পিয়াডের সমস্যাগুলো সমাধানে এই ধাপ বা নিয়মগুলো – কোন ধাপের পর কোন ধাপ হবে – নিজেকে চিন্তা করে বের করতে হয় – অর্থাৎ গণিত সৃষ্টি করতে হয়।

আমরা বলি, স্কুল কলেজে তোমরা exercise কর, আর আমরা গণিত অলিম্পিয়াডে problem solve করি। কাজেই এখনও যারা Problem Solving কর না, আশা করি, তোমরাও দ্রুত আমাদের দলে যোগ দেবে!

যারা Problem Solving করে তাদের অনেক ভাবতে হয়। ভাবতে গিয়ে তাদের “নিউরনে অনুরনন” হয় এবং তারা অনেক ভালভাবে চিন্তা করতে, বিশ্লেষণ করতে শেখে। গণিত অলিম্পিয়াড সূচনার পর একটা প্রজন্ম গড়ে উঠছে যাদের গড় IQ আগের প্রজন্মগুলোর তুলনায় বেশি। নতুন প্রজন্মের এই ছেলেমেয়েরা অনেক ভালভাবে চিন্তা করতে পারে। আমাদের দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দৈনিক এ নিজের ছবি দেখা, বিশ্ব প্রতিযোগিতায় নিজ দেশকে represent করা – অনেক বড় inspirationএই মেধাবী ছেলেমেয়েগুলো যখন দেশ ও সমাজের দায়িত্ব নেবে, তখন আমরা নতুন একটা দেশ গড়ে তুলবো।

আমরা লক্ষ্য করেছি, গণিত অলিম্পিয়াডের অনুষ্ঠানগুলোতে অনেক ভাল ভাল কথা হয়। আলোকিত মানুষ হওয়ার, দেশকে ভালবাসার অনুপ্রেরণা পায় ছেলেমেয়েরা। ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা দেশের গুণী মানুষদের কাছ থেকে দেখার সুযোগ পায়, প্রশ্ন করতে পারে, কথা বলতে পারে এবং এমনকি চাইলে অটোগ্রাফও নিতে পারে!

দুটা চমৎকার ব্যাপারের

  • একটা হল “গণিত শেখো, স্বপ্ন দেখো” থিম – অনেকগুলো ছেলেমেয়ে নিজের জীবন নিয়ে দেশ নিয়ে বড় বড় স্বপ্ন দেখছে এবং তার চেয়েও বড় কথা স্বপ্নগুলোকে বিশ্বাস করছে। বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী দেশের শিশুকিশোর গণিতবিদদের কাছে যে ৩টি স্বপ্নের কথা বলেছিলেন তাদের মাঝে ছিল ২০২২ সালের মধ্যে একজন বাংলাদেশী গনিতবিদের ফিল্ডস মেডল জয় এবং ২০৩০ সালের মধ্যে একজন বাংলাদেশী বিজ্ঞানীর নোবেল পুরষ্কার জয়। আমাদের ক্ষুদে গণিতবিদরাও এই স্বপ্নগুলো বাস্তবায়নে নিজেদের তৈরি করছে। 
  • আরেকটা হল একেবারে ক্লাস থ্রি – ফোরের ছেলেমেয়েরা ড. জাফর ইকবালের ভাষায় “পেন্সিল কামড়ে” অঙ্ক করতে আসে!

আমরা লক্ষ্য করেছি, বাংলা মাধ্যমের বেশ কিছু ছেলেমেয়ে বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আন্ডারগ্রাজুয়েট লেভেল এ পড়ার সুযোগ পেয়েছে। মুন পড়ছে Harvard University তে [1], নাজিয়া MIT তে [2] (তা নাহলে “MIghTy” শব্দটা এভাবে লেখা আমরা কোত্থেকে শিখতাম!), ইশফাক Stanford University তে [3], তানভির Caltech এ [4] (আমাদের শ্রদ্ধেয় প্রফেসর ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল এই বিশ্ববিদ্যালয়ে Post-Doctoral Researcher হিসেবে কর্মরত ছিলেন) [5], সামিন Cambridge University তে [6]।

আগে অ্যামেরিকা, ইউরোপ, এশিয়া বা অস্ট্রেলিয়ার গ্রাজুয়েট স্কুলগুলোতে আমরা এমএস বা পিএইচডি করতে যেতাম। ইংরেজি মাধ্যমের অবস্থাসম্পন্ন ছেলেমেয়েরা পড়তে পারত আন্ডারগ্রাজুয়েট লেভেলে। কিন্তু “বাংলা মাধ্যম” থেকে “স্কলারশিপ নিয়ে” “আন্ডার গ্রাজুয়েট” লেভেলে “বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে” পড়তে যাওয়াটা নতুন!

“বাংলা মাধ্যম” থেকে “স্কলারশিপ নিয়ে” “আন্ডার গ্রাজুয়েট” লেভেলে “বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে” পড়ার পথ দেখানোর কৃতিত্বের একক দাবিদার বাংলাদেশ গণিত দলের কোচ ড. মাহবুব মজুমদার  [7]; যিনি নিজে MIT থেকে Electrical Engineering এ আন্ডারগ্রাড, Stanford University থেকে Civil Engineering এ মাস্টার্স এবং Cambridge University থেকে Theoretical Physics এ PhD করে Imperial College এ [8] Post Doctoral করছিলেন। ২০০৫ সালে বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের সাথে সম্পৃক্ত হন এবং স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে দেশে থেকে যান। বিদেশী ও ইঞ্জিনিয়ারিং আন্ডারগ্রাড ডিগ্রি থাকা এবং আরও কিছু হাস্যকর কারণ দেখিয়ে তাকে Dhaka University র Physics Department এ যোগ দিতে দেওয়া হয়নি [9]। তিনি স্বপ্ন দেখেন বাংলাদেশে একটা বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয় এবং গবেষণাপ্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার। তার মত ভাল মানুষ সচরাচর দেখা যায় না। আমরা তার পাশে থাকবো।

১৯০৫ এ আইনস্টাইনের “Miracle Year” [10] স্মরণে ২০০৫ সালের বাংলাদেশ জাতীয় গণিত অলিম্পিয়াডে আইনস্টাইন এবং পদার্থবিজ্ঞানের উপর একটা প্রশ্ন উত্তর পর্ব ছিল। সেখানে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিয়েছিলাম। তাই গণিত ক্যাম্পে ড. মাহবুব মজুমদার আগ্রহের সাথে পদার্থবিজ্ঞান নিয়ে আলোচনা করতেন। মেক্সিকোতে যাওয়ার আগে প্রেস কনফারেন্সে দেখি তিনি স্ট্রিং থিউরি (String Theory) র [11]  একটা জটিল পেপার নিয়ে হাজির!

আরেকটা ব্যাপার লক্ষ্য করার মত। আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে আমাদের সাফল্যের মাত্রা দ্রুত বাড়ছে। আমাদের কিশোর – তরুণ গণিতবিদরা ২০০৬ সালে প্রথমবারের মত অনারেবাল মেনশান, ২০০৯ সালে প্রথমবারের মত ব্রোঞ্জ মেডেল, ২০১২ সালে প্রথমবারের মত সিলভার মেডেল জয় করে এনেছে। আমরা আশা করছি, এই ধারা অব্যাহত রেখে বাংলাদেশ গণিত দল ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াড থেকে গোল্ড মেডেল নিয়ে ফিরবে! গোল্ড মেডেল জয়ী সেই গণিতবিদ হতে পারো তুমিই!

গণিত অলিম্পিয়াড সূচনা এবং সাফল্যের পর বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ে অলিম্পিয়াড শুরু হয়েছে।

  • পদার্থবিজ্ঞান অলিম্পিয়াড 
  • রসায়ন অলিম্পিয়াড
  • জীববিজ্ঞান অলিম্পিয়াড 
  • প্রাণরসায়ন অলিম্পিয়াড
  • ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড 
    • কম্পিউটার প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। আমাদের স্কুল কলেজের ছেলেমেয়েরা এখন আন্তর্জাতিক প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় মেডেল জয় করে আনছে! ভাবা যায়!  

গণিত অলিম্পিয়াডের এই সংস্কৃতি সম্ভব হয়েছে কিছু তরুণ – তরুণীর স্বেচ্ছা কর্মোদ্যোগে। আমরা তাদের “মুভারস” (MOVERS – Math Olympiad Volunteers) বলে জানি। একটা শুভ উদ্যোগে দেশের তরুণ তরুণীদের উৎসাহী অংশগ্রহণ আমাদের প্রাণশক্তিতে ভরপুর তরুণ প্রজন্মকে সংজ্ঞায়িত করে।

নাগরিক শক্তি গণিত অলিম্পিয়াডের এই সংস্কৃতিকে দেশে আরও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেবে।

– ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী: তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা; উপাচার্য, ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক; সভাপতি, বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি।

তরুণ প্রজন্ম এখন নেতৃত্ব নিতে সক্ষম
– ডঃ মুহম্মদ জাফর ইকবাল, বিভাগীয় প্রধান, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

ভর্তি, মান ও দক্ষ জনশক্তি
– ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ: অধ্যাপক, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ও ফেলো, বাংলাদেশ একাডেমি অব সায়েন্সেস।



তোমাদের জন্য লেখা

আরও কিছু লেখা

বাংলাদেশে বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড

রেফরেন্স

  1. Harvard University
  2. MIT
  3. Stanford University
  4. California Institute Of Technology
  5. Dr. Muhammed Zafar Iqbal
  6. Cambridge University
  7. Dr. Mahbub Majumdar
  8. Imperial College
  9. A painful funny story
  10. Einstein’s Miracle Year
  11. String Theory

How Mathematics Has Got Broader With Time

How Mathematics has got broader with time
Early Mathematics: Study of Quantities and Shapes
    • Areas: Number System, Algebra, Number Theory, Geometry
    • Foundational work by Euclid (Elements) and Pythagoras

 

Calculus

  • Mathematics of change
  • Still the study of quantities, but changing ones
  • 17th century invention
  • Newton and Leibniz

 

Probability

  • Mathematics of chance
  • 17th century invention
  • Fermat, Pascal & Others

 

Analysis [Link]

  • Generalization of the ideas of Calculus – limit, continuity, differentiability, etc.

 

Abstract Algebra [Link]

  • Generalization of Classical Algebra
  • Study of Algebraic Structures
  • Mathematics of symmetry (Not just calculation of “quantities”)
  • Flourished in 19th & 20th Century

 

Extensions of geometry

 

Automata, Languages, Computability – Discrete Mathematics 

  • 20th century
  • Advent of Computers – finite state machine
  • Interest in Number Theory, Combinatorics, Graph Theory exploded

Network Science [Link]

  • Dynamic graph
  • Work begun in earnest in the late 20th and into the 21st century
  • Proliferation of Computer, Telecommunications and Social Networks.

The Idea Of Promoting Non-zero Sum Games: How Winning With Others Helps You Win Bigger

Game theory is a branch of both Economics and Mathematics. 


When you start considering

  • your opponents 
  • possible action choices and respective outcomes of actions of both you and your opponents

you have entered the realm of Game Theory.

The field has found applications in areas as diverse as Artificial Intelligence, Evolutionary BIology and Politics.

A game where a player wins 5 points and his opponent loses 5 points is a zero-sum game.
5+(-5)=0.

On the other hand, in a non zero-sum game, the outcome is not zero.
For example, if a player wins 5 points and his opponent wins 2 points, the overall outcome is 5 + 2 = 7. So here we have a win-win, non-zero sum game – both wins.

Non-zero sum game doesn’t mean that you have to lose in order to make others win. The idea is not to think solely in terms of your profit but to develop business plans so that you win bigger by including others as “co-winners”. Here are some practical examples.

  • Lets consider Google’s Android Platform. Google could develop a mobile operating system and develop all the apps themselves. If that happened then we would have far less apps and more importantly, less innovative apps. But Android is an open platform. Anyone can develop apps for the Android platform. So in this case, Google didn’t want to win only by themselves. Google saw you – the app developer – as a co-winner. That is the reason why we have so many App developers making great money. Of course, Google is winning. Google is taking 30% cut. And Google is winning bigger by helping you win. As more apps are available, Android Phone / Tablet sell is on the rise. So just as Google and App Developers are winning, companies who advertise on Android are reaching more customers through the apps and winning bigger. And last but not least, don’t forget the customers whose lives are getting easier and richer with all these apps that app developers are developing. They are winning too!
  • As the economic condition of the developing and undeveloped nations rises, their purchasing power rises, which in turn creates opportunities for developed countries in our increasingly interconnected and interdependent world. Developed countries have more exports and imports among themselves. Why not plan for a future where all the countries have more to export and more to import? Won’t the citizens have a better and richer life? 
  • Google and Facebook have taken initiatives to increase Internet penetration, targeting “the next billion” or so they say, which in turn increases the number of users of their services. So here is the win-win scenario. 
    • Users learn more, communicate better, use better tools [apps] and as a result earn more + living condition goes up.
    • Marketers, App developers reach more of their customers and sell more of their products.
    • Google and / or Facebook get more cut.
  • Taking initiative to reduce Climate change should be win-win.
  • Here is how mobile 
    • fights poverty
    • bypasses poor infrastructure which could have been a roadblock to development 
    • makes companies get rich.

Organization Of The Study And Application Of Algorithms

Computational Abstractions

  • Control Abstractions
    • Loop 
    • Recursion
  • Data Abstractions 
    • Data Abstraction Components
      • Structure of Data
      • Operations on Data
    • Linear Data Abstractions 
      • Array
      • Stack 
      • Queue
      • Linked List 
    • Tabular Data Abstractions 
      • Hashing
    • Recursive Data Abstractions
      • Binary Search Tree 
      • Red Black Tree
      • Heap
    • Graph Abstraction
      • Model: Objects with binary relation defined on pairs


Computational Complexity

  • Time Complexity
  • Space Complexity  


    Algorithmic Paradigms

    • Dynamic Programming
      • Recursively define solution to problem in terms of solution to limited number of subproblems.
        • What could be the penultimate subproblems? (Work backwards.)
        • Subproblems having same structure as the original problem, only being smaller in size. 
        • Prove – defining solutions in terms of solutions to subproblems is optimal.
      • Compute and store the results of subproblems in memory so that you don’t have to recompute them. Then use the stored results to compute solution to the problem. 
    • Divide & Conquer
      • Divide the problem into subproblems (dividing up inputs into parts) and solve the subproblems recursively. 
      • Combine the results of solutions of subproblems.
    • Greedy
    • Backtracking
      • If you can define the space of all possible solutions, you can search the space for solutions systematically through backtracking. 
      • In backtracking, you generate one element at a time towards the solution and backtrack whenever you meet a dead-end.  


    Application Domains


    Design algorithms using 

    • Domain Knowledge
    • Computational Abstractions & Algorithmic Paradigms 

    Number Theory

    • Domain Knowledge: Prime, GCD etc.
    • Computational Abstractions & Algorithmic Paradigms: Loop, Recursion etc.

    Combinatorics

    • Domain Knowledge: Binomial Co-efficient, etc.
    • Computational Abstractions & Algorithmic Paradigms: Loop, Table, Dynamic Programming etc.

    String Processing

    Linear Programming


    Matrix Algorithms

    Computational Geometry

    • Domain Knowledge: Properties of geometric objects
    • Computational Abstractions & Algorithmic Paradigms: Stack, etc.

    Polynomials & Fast Fourier Transform

    Areas Of Mathematics I Am Working On

    Probability & Statistics

    • Probability.
      • Bayes. Bayesian Network.
      • Hidden Markov Model
    • Statistics
    • Stochastic models & processes

    Algebra

    • Classical Algebra
      • Polynomials
      • Inequalities
      • Series & Sequences
      • Functional Equations
    • Linear Algebra. Matrix. 
      • Eigenvalue. Eigenvector.
      • Latent Semantic Indexing.
    • Abstract Algebra
      • Group Theory 
    • Algebraic Geometry
    • Representation Theory
    • Category Theory
    • Quaternions 

    Analysis

    • Calculus
    • ODE
    • PDE
    • Real Analysis
    • Complex Analysis
    • Vector Analysis
    • Tensor Analysis
    • Fourier Analysis
    • Laplace Transform
    • Harmonic Analysis

    Geometry

    • Euclidean Geometry
    • Co-ordinate Geometry
    • Trigonometry
    • Topology
    • Manifold
    • Differential Geometry
    • Dynamical Systems

    Discrete Mathematics

    • Combinatorics
    • Combinatorial Geometry
    • Graph Theory
    • Automata & Language Theory. Boolean Algebra.
    • Number Theory
    • Cryptography
    • Mathematical logic

    Applied Mathematics

    • Algorithm
    • Game Theory
    • Concrete Mathematics
    • Operations Research
      • Optimization
    • Numerical Analysis. Scientific Computing
    • Network Science
    • Mathematical Economics
    • Mathematical Physics
    • Mathematical Biology
    • Theoretical Computer Science 


    And of course Mathematical Problem Solving and the study of heuristics.

    Anyone want to join me?

    বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াডের সংস্কৃতি

    বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াডের সংস্কৃতির সূচনার পর বেশকিছু ব্যাপার আমরা লক্ষ্য করছি।

    আমরা লক্ষ্য করছি, অনেকগুলো ছেলেমেয়ে রাতদিন গণিত করে।

    স্কুল কলেজে আমরা গণিত বলতে exercise করি – কিছু নির্দিষ্ট ধাপ বা কম্পিউটার বিজ্ঞানের ভাষায় অ্যালগরিদম মেনে চলি মাত্র। কিন্তু গণিত অলিম্পিয়াডের সমস্যাগুলো সমাধানে ধাপগুলো বা অ্যালগরিদম নিজেকে দাঁড় করাতে হয়। অন্যকথায়, গণিত সৃষ্টি করতে হয়।

    একটা উদাহরণ দেই। দুটা সংখ্যাকে গুণ করতে আমরা না বুঝেই কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চলি – প্রথমে দুটি সংখ্যার সবচেয়ে ডানের অঙ্ক দুটিকে গুণ করি, তারপর হাতে রাখি ইত্যাদি। কিন্তু গণিত অলিম্পিয়াডে এই ধাপ বা নিয়মগুলো – কোন ধাপের পর কোন ধাপ হবে – তা নিজেকে চিন্তা করে বের করতে হয় – অর্থাৎ গণিত সৃষ্টি করতে হয়। আমরা বলি, স্কুল কলেজে তোমরা exercise কর, আর আমরা গণিত অলিম্পিয়াডে problem solve করি। কাজেই এখনও যারা Problem Solving কর না, আশা করি, তোমরাও দ্রুত আমাদের দলে যোগ দেবে!

    একটা প্রজন্ম গড়ে উঠছে যাদের গড় IQ আগের প্রজন্ম গুলোর তুলনায় বেশি। অনেকগুলো ছেলেমেয়ে আগের চেয়ে ভালভাবে চিন্তা করতে পারে। আমাদের দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দৈনিক এ নিজের ছবি দেখা; বিশ্ব প্রতিযোগিতায় নিজ দেশকে represent করা – অনেক বড় inspiration

    আমরা লক্ষ্য করেছি, গণিত অলিম্পিয়াডের অনুষ্ঠানগুলোতে অনেক ভাল ভাল কথা হয়। আলোকিত মানুষ হওয়ার, দেশকে ভালবাসার অনুপ্রেরণা পায় ছেলেমেয়েরা। ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা দেশের গুণী মানুষদের কাছ থেকে দেখার সুযোগ পায়, প্রশ্ন করতে পারে, কথা বলতে পারে এবং অটোগ্রাফও নিতে পারে!

    দুটা চমৎকার ব্যাপারের একটা হল “গণিত শেখো, স্বপ্ন দেখো” – অনেকগুলো ছেলেমেয়ে নিজের জীবন নিয়ে দেশ নিয়ে বড় বড় স্বপ্ন দেখছে। আরেকটা হল একেবারে ক্লাস থ্রি – ফোরের ছেলেমেয়েরা ড. জাফর ইকবালের ভাষায় “পেন্সিল কামড়ে” অঙ্ক করতে আসে!

    আমরা লক্ষ্য করেছি, বাংলা মাধ্যমের বেশ কিছু ছেলেমেয়ে বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আন্ডারগ্রাজুয়েট লেভেল এ পড়ার সুযোগ পেয়েছে। মুন পড়ছে Harvard University তে [1], নাজিয়া MIT তে [2] (নাহলে “MIghTy” শব্দটা এভাবে লেখা আমাদের শেখা হত না!), ইশফাক Stanford University তে [3], তানভির Caltech এ [4] (আমাদের শ্রদ্ধেয় ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল এই বিশ্ববিদ্যালয়ে Post-Doctoral Researcher হিসেবে কর্মরত ছিলেন) [5], সামিন Cambridge University তে [6]।
    আগে গ্রাজুয়েট স্কুলগুলোতে আমরা এমএস বা পিএইচডি করতে যেতাম। ইংরেজি মাধ্যমের অবস্থাসম্পন্ন ছেলেমেয়েরা পড়তে পারত আন্ডারগ্রাজুয়েট লেভেলে। কিন্তু “বাংলা মাধ্যম” থেকে “স্কলারশিপ নিয়ে” “আন্ডার গ্রাজুয়েট” লেভেলে “বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে” পড়তে যাওয়াটা নতুন!

    “বাংলা মাধ্যম” থেকে “স্কলারশিপ নিয়ে” “আন্ডার গ্রাজুয়েট” লেভেলে “বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে” পড়ার পথ দেখানোর কৃতিত্বের একক দাবিদার বাংলাদেশ গণিত দলের কোচ ড. মাহবুব মজুমদার  [7]; যিনি নিজে MIT থেকে Electrical Engineering এ আন্ডারগ্রাড, Stanford University থেকে Civil Engineering এ মাস্টার্স এবং Cambridge University থেকে Theoretical PhysicsPhD করে Imperial College এ [8] Post Doctoral করছিলেন। ২০০৫ সালে বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের সাথে সম্পৃক্ত হন এবং স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে দেশে থেকে যান। বিদেশী ও ইঞ্জিনিয়ারিং আন্ডারগ্রাড ডিগ্রি থাকা এবং আরও কিছু কারণ দেখিয়ে তাকে Dhaka UniversityPhysics Department এ যোগ দিতে দেওয়া হয়নি। [9]

    ১৯০৫ এ আইনস্টাইনের “Miracle Year” [10] স্মরণে ২০০৫ সালের বাংলাদেশ জাতীয় গণিত অলিম্পিয়াডে আইনস্টাইন এবং পদার্থবিজ্ঞানের উপর একটা প্রশ্ন উত্তর পর্ব ছিল। সেখানে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিয়েছিলাম। তাই গণিত ক্যাম্পে ড. মাহবুব মজুমদার আগ্রহের সাথে পদার্থবিজ্ঞান নিয়ে আলোচনা করতেন। মেক্সিকোতে যাওয়ার আগে প্রেস কনফারেন্সে দেখি তিনি স্ট্রিং থিউরি (String Theory) র [11]  একটা জটিল পেপার নিয়ে হাজির!

    আরেকটা ব্যাপার লক্ষ্য করার মত। আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে আমাদের সাফল্যের মাত্রা দ্রুত বাড়ছে। আমাদের কিশোর – তরুণ গণিতবিদরা ২০০৬ সালে প্রথমবারের মত অনারেবাল মেনশান, ২০০৯ সালে প্রথমবারের মত ব্রোঞ্জ মেডাল, ২০১২ সালে প্রথমবারের মত সিলভার মেডাল জয় করে এনেছে। আমরা আশা করছি, এই ধারা অব্যাহত রেখে বাংলাদেশ গণিত দল ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াড থেকে গোল্ড মেডাল নিয়ে ফিরবে! গোল্ড মেডাল জয়ী সেই গণিতবিদ হতে পারো তুমিই!

    গণিত অলিম্পিয়াডের এই সংস্কৃতি সম্ভব হয়েছে কিছু তরুণ – তরুণীর স্বেচ্ছা কর্মোদ্যোগে। আমরা তাদের “মুভারস” (MOVERS – Math Olympiad Volunteers) বলে জানি। একটা শুভ উদ্যোগে দেশের তরুণ তরুণীদের উৎসাহী অংশগ্রহণ আমাদের প্রাণশক্তিতে ভরপুর তরুণ প্রজন্মকে সংজ্ঞায়িত করে।

    নাগরিক শক্তি গণিত অলিম্পিয়াডের এই সংস্কৃতিকে দেশে আরও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেবে।

    Research Problems I Want To Work On

    1. How do you create Advanced Artificial Intelligence that is better than human experts and understands and can reason about everything on the Web and in the real world?
    2. How do you Codify Biology (DNA, Proteins, Metabolic and Signalling Pathways, Cells, Tissues, Organs, Body) so that you can predict and control? (Codification of Biology, Engineering Biology, Systems Biology, Computational Biology, Curing Diseases & Disabilities, Increasing Lifespans.) 
    3. How do you invent better tools, technologies (Imaging, Optogenetics) and Models for Understanding and Engineering the BrainHow do you Cure Neurological and Psychiatric Disorders?
    4. How do you Understand Complex Systems consisting of lots of interacting agents? (Application of Big Data; Inventing better Models, Mathematics, Algorithms to understand complex systems better; finding answers to age old questions in Sociology, Behavioral Science, Political Science, Economics & Business)
    5. How do you Design Materials and Nanostructures with required properties using Computers?
    6. How do you make Software Developers say 100 times more productive?
    7. How do you design an Effective Education and Learning and Research Platform?
    8. How do you create Platforms that empower people – so that the enormous potential in each and everyone of us is materialized?
    9. How do you take Human – Computer (networked) collaboration, intelligence to the next level?
    10. How do you integrate the Information World and the Physical World? (A world where the Physical world is completely aware of everything utilizing information from the Information World; the world of information is embedded in the Physical World.)
    11. How do you design Next Generation Manufacturing Technologies? (Fab-lab, 3D Printing, Automation)
    12. Exploration of new computing architectures – continuation of Moore’s law: exponential increase in processing power; computational power for data processing, intelligence; (Parallel computing architectures (e.g., GPUs); Molecular computing; Quantum computing; Cognitive computing / Neuromorphic computing)
    13. How do you solve Local, Social and Global problems (clean water, cheap energy etc.) utilizing massive collaboration and exponential technologies?
    14. How do you predict and prevent Natural Disasters?
    15. Joining the pieces of puzzle together to get a complete picture of the Ultimate Reality

    Evolution of My Dreams and Realizations

    My first ‘Aim in life’, as far as I can remember (It was 1988 / 89; I was 2 or 3), was to become a milkman. I mean, it wasn’t about being a milkman. I wanted to become the honest person appreciated by my parents – a milkman. So, what I truly wanted to become was a plain, simple, honest person. 

    stock-photo-milkman-94006828

    Next, I wanted to become a building mechanic. I used to stare at people who built houses in awe. My uncle sent me a toy Mechanical Tool Box.

    My next major change in aim occurred when I wanted to join the Military (age: 4-5). Each night, I used to stay awake until the National Anthem with the National Flag was played on BTV and give salute. I watched a Television program depicting Military life. One of my uncles quipped: “The secret: Tahsin wants to become the President!”.

    salute-quotes-6
    My mom told me of an incident that took place when I was a baby of few months old. One day, General Ershad was delivering a speech (who was then the President). My mom was studying for her exams. I was lying right beside my maternal Grandfather. My Grandfather suddenly started praying loudly: “God, grant my wish and guide my grandson to become the President and lead the Nation.” My Grandmother called my mom, “Come! Quick! Look how your dad is praying for your son!”     

    During my First grade, a serial had an enormous influence on me: “The sword of Tipu Sultan”. Tipu Sultan and Hyder Ali were my childhood heroes. The serial drew me to History. I was deeply influenced by another historical novel during 3rd / 4th Grade – “Khun Ranga Path”. Besides History, books on General Knowledge were among my favorites from an early age. My father bought me my first “General Knowledge” book (Encyclopedia) around 5. Then I discovered “General Knowledge” books (Encyclopedia) in my aunt’s house. Later, I started buying Encyclopedia myself. I used to stare at the Globe of the world and fantasize (
    Grade 3 / 4). I fantasized first becoming a King of Ancient Bengal, then King of Myanmar (Burma) and later lifetime President of Kazakhstan. 

    I remember playing computer games at one of our relative’s house during Fifth grade. Almost everyone around me wanted to become a Computer Engineer at that time. So I thought I should try to become one myself – a Computer Engineer. 

    During my middle school years, I was a voracious reader of novels. Reading novels was the most fun activity I could think of. I could understand different writing techniques employed by novelists. Becoming a novelist, writing great novels was my dream during 7th to 10th grade (1999 – 2002). For living, I would become a Physician or Engineer or Architect. That was my plan.

    During 9th / 10th grade, I made up my mind to study Medicine (there was huge encouragement from my parents) and become a Physician besides writing novels.

    When I read a book on Psychology (my mom’s book on Educational Psychology from her M.Ed. course), I understood that an intense interest in the workings of the human mind was the chief reason I wanted to become a novelist. Moreover, Literature could only depict subjective human experience, but the objective theories of Psychology applied to all humans.

    I thought that I could become a Physician and specialize in Psychiatry or Neurology.

    Studying Psychology helped me understand the essence of Science: To understand experimentally provable General Rules that govern everything we see around us.

    Studying Psychology books gave me the confidence that: I can come up with original ideas, and that I should question what is written in books.

    Trying to understand the theories of Psychology in terms of my own experiences and what I see around me, made me aware of the connection between Real World and the world of Books and Theories.

    As I later diversified and ventured into different branches of Science, these realizations and understandings proved invaluable.

    One day, as I was preparing for my high school (11th grade) Entrance Exam (later it was decided that Entrance would be based on results of matriculation exam), a Chapter on different forms of Energy from my Physics book grabbed my attention. I thought: maybe I could work on both Psychology / Neurology and Physics. I went through my 9-10th grade Physics book. I bought and read other books (Undergraduate level Physics Textbooks, Stephen Hawkin’s A Brief History of Time and others).

    I thought and wrote down my understandings and realizations. I tried to come up with new Theories myself.

    Physics taught me to understand “everything” in terms of fundamental constituents and few fundamental laws that govern things we see around us.

    Physics made me realize the necessity of learning Higher Mathematics.

    Mathematical Olympiad was gaining popularity in Bangladesh at that time (it was 2003). I bought Books and started solving problems.

    One of the books published at that time was “নিউরনে অনুরণন” (“Resonance in neurons”). The idea for the name: it’s better to create resonance in your brains’ neurons by solving Mathematical problems rather than leaving the neurons idle!

    I found out: the more I worked on problems, the better I could think! My Neurons really were resonating!

    My interest in Psychology helped me appreciate brain function improvement and Mathematical Problem Solving. I discovered ways of improving brain function myself.

    It was an amazing realization – I could become anyone I wanted if I worked in the right way.

    Other Sciences started grabbing my attention.

    Psychology drew me to Neuroscience – the Biology of what happens in the mind. Physics led me to Cosmology (the study of the evolution of the Universe) and some of the books described evolution of our planet and Biological evolution. Evolutionary Biology was among my favorites.

    At that point, I saw my future as a Scientist: trying to understand the truth and decode the Laws of Nature.

    I became interested in Computer Science and Engineering as I read an article portraying the field of Artificial Intelligence. The article was written by Dr. Ali Asgar included in one of his popular science books (Grade 11). I bought Undergrad Texts on Artificial Intelligence and started reading.

    Psychology and Neuroscience always grabbed my attention. So when I found out that there is a subfield in CS that tries to emulate intelligence on computers, I got hooked instantly. 

    Later, I participated in International Mathematical Olympiad, and met people who were serious participants in programming contests and I felt that I really liked contests and competitions. Besides, computation seem to be everywhere – required in almost every branch. I could do Physics and Biology on Computers. I read an inspirational book (“Medhabi Manusher Golpo” – Prof. Dr Kaykobad) which depicted lives of eminent Computer Scientists and students of Computer Science. The choice was either Physics or Computer Science and Engineering, but my parents wouldn’t let me study Physics. Choosing Computer Science and Engineering also made sense when I considered practical aspects. I thought: I could still pursue my multi-disciplinary interests besides studying CSE at college. 

    The Majors I considered at that time included: Computer Science and Engineering, Physics, Mathematics, Neuroscience, Nanotechnology / Nanoengineering & Bioengineering / Biomedical Engineering.

    [If you find my life and my understandings interesting you might like Looking back and connecting the dots.]

    Lets move a few years forward … During March / April 2013, I thought, I should analyze and understand and learn from and codify everything I see around me – just as I did with the sciences and engineering. I started with the political situation in Bangladesh. I wanted to figure out what would happen if I start my own Political Party. Next, I applied my analysis to other domains: Mechanical Engineering, Economics, Computer Science.

    15349608_1812528449024359_1986192403384969711_n
    I come across new understandings and realizations almost on a daily basis. I look forward to share my newer understandings at sometime in not too distant future: “Living to tell the tale”, truly!
    16939627_1856497677960769_8334827596973863688_n